Colocynthis (কলোসিন্থিস): গুরুত্বপূর্ণ রুব্রিকসহ

৬৯.১। Colocynthis (কলোসিন্থিস)।
DHMS (2nd year).
♣ সমনামঃ বিটার কিউকাম্বার, রাখাল শশা।
♣ মায়াজমঃ সোরিক, সাইকোটিক।
♣ সাইডঃ ডানপাশ, বামপাশ, ওপরে ডানপাশ নিচে বামপাশ।
♣ কাতরতাঃ শীতকাতর।
♣ উপযোগিতাঃ ওষুধটি বিশেষভাবে উপযোগী খিটখিটে ব্যক্তি যারা সহজেই রেগে যায় এবং এর কুফলজনিত কারণে উপসর্গগুলোতে ভালো কাজ করে। যে সকল স্ত্রীলোকের প্রচুর ঋতুস্রাব হয় এরা যারা বসে বসে সময় কাটায়। যে সকল ব্যক্তিদের ভেতর মোটা হবার প্রবণতা দেখা যায়।
♣ ক্রিয়াস্থলঃ স্নায়ু, সায়াটিকা, অন্ত্র, মাথা, উদর, পেশী, পরিপাকতন্ত্র, ওভারি, কিডনি, হজমপথ, মেরুদন্ড।
♣ বৈশিষ্ট্যঃ এ ওষুধের শক্তিশালী চারিত্রিক বৈশিষ্ট্য হলো মানসিক যন্ত্রণাদায়ক পেটের ব্যথা ফলে সে দ্বিভাঁজ হতে বাধ্য হয়।
♣ ফিজিওলজিক্যাল কাজঃ পাকস্হলীতে ভীষণ যন্ত্রণা উৎপন্ন করতঃ পানির মতো পাতলা কারপর রক্ত এবং শ্লেষ্মা ভেদ উৎপন্ন করে। এটি পাকস্হলী এবং অন্ত্র ইত্যাদি স্থান ছাড়া স্নায়ুমণ্ডলীও আক্রমণ করে।
♣ সারসংক্ষেপঃ খিটখিটে ব্যক্তি যারা সহজেই রেগে যায় এবং এর কুফলজনিত কারণে রোগোৎপত্তি। মোটা হবার প্রবণতাযুক্ত। পাকস্হলী এবং অন্ত্র ইত্যাদি স্থান ছাড়া স্নায়ুমণ্ডলীও আক্রমণ করে। পোকা হাঁটার মতো অনুভুতি : অভ্যন্তরীণ। বিকাল ৪টা হতে রাত ৯টা, আহারের পরে, ফল খেলে, ব্যথাশূন্য পাশে শুলে, সঞ্চালনে ও ক্রোধজনিত অসুস্থতা। ওপুড় হয়ে শুলে, স্পর্শে, চাপে, উত্তাপ প্রয়োগে কমে। দাঁত দিয়ে কাটার মতো পেটব্যথা হয় ; তাতে সামনের দিকে ঝুঁকতে বাধ্য হয়। ব্যথার সাথে বমি।
♣ অনুভূতিঃ ১) হাতে পায়ে শীতল অনুভুতি থাকা সত্ত্বেও হাঁটুতে গরম বোধ হয়। ২) লোহার বন্ধনী থাকার অনুভূতি।
♣ ক্রম ও সহচর লক্ষণঃ ১) তিক্ততার সাথে রাগ হতে রোগের উৎপত্তি। ২) শ্বাসযন্ত্রের সমস্যা ও মাথাব্যথা পর্যায়ক্রমে দেখা দেয়। ৩) প্রস্রাবের পর শরীর ঝাঁকি দিয়ে ওঠে।
< বৃদ্ধিঃ পূর্বাহ্নে, অপরাহ্ন ৪টায়, ৫টাই, সন্ধাকালে, বিকেল ৪টা থেকে রাত ৯টায়, রাতে, খোলা বাতাসে, সাধারণভাবে ঠান্ডায়, ঠান্ডা বাতাসে, ঠান্ডা লাগালে পরে, আহারের পরে, পালকের শয্যায়, পুরাতন পনিরে, শীতল পানীয়ে, ফল খেলে, গোল আলু খেলে, চিৎ হয়ে শুলে, বিছানায় শুলে, ব্যথা শূন্য পাশে শুলে, সঞ্চালনে, আক্রান্ত অঙ্গে সঞ্চালনে, বসাবস্হায়, হাঁটলে, ক্রোধ এবং ঘৃণা মিশ্রিত ক্রোধ, ঝাপটা আবহাওয়ায়, মানসিক উত্তেজনা, যন্ত্রণাবিহীন পাশে শয়নে।
> হ্রাসঃ ওপুর হয়ে শুলে, ব্যথাযুক্ত পাশে শুলে, বসে থাকলে, তামাকে, স্পর্শে, চাপে, উত্তাপ প্রয়োগে, মলত্যাগের পর, কফিপানে, ধীরে চলাফেরায়, বায়ু নিঃসরণে, পেটে চাপ দিলে, মাথা সামনের দিকে ঝাঁকিয়ে শয়নে, বিশ্রামে।
♣ কারণঃ ক্রোধ, বিরক্তি, ঘৃণা মিশ্রিত ক্রোধ, শোক, ঠান্ডা লাগান, রিপুদমন, অতিরিক্ত পরিশ্রম, দুঃখ, বদহজম।
♣ ক্রিয়ানাশকঃ ক্যাম্ফ, কস্টি, ক্যামো, কফি, ওপি, স্ট্যাফি।
♣ এটি ক্রিয়ানাশকঃ কস্টি, ম্যাঙ্গানিজ।
= উপরোক্ত লক্ষণ সাদৃশ্যে যে কোন রোগেই আমরা কলোসিন্থ প্রয়োগ করতে পারবো।
গুরুত্বপূর্ণ কয়েকটি রুব্রিকঃ
১.১) ক্রোধ : বিরক্তি প্রভৃতি পরবর্তী পীড়া হেতু- A= অ্যাকোন, ক্যামো, ককুল, কলো, ইগ্নে, ইপি, নাক্স-ভ, ওপি, স্ট্যাফি।
১.২) ক্রোধ : ঘৃণাভাবসহ- A= কলো, স্ট্যাফি।
২) মনোঃকষ্ট রোগের পরবর্তী ;- A= কলো, ইগ্নে, লাইকো, ন্যাট্র-মি, প্যালাডি, ফস।
৩) অস্হিরতা, স্নায়বিকতা (Restlessness, nervousness) /অস্হির (Fidgety) – অ্যাকোন, অ্যানাকা,আর্জ-নাই,আর্স,আর্স-আই,ব্যাপটি,বেল,ক্যাল্ক,ক্যাল্ক -ফস,ক্যাম্ফ,সিমিসি,সাইকু, কলো, কুপ্রা, কুপ্রা-আর্স,ফেরাম, ফেরা-আর্স, হায়োস, লাইকো, মার্ক, প্লাম্বা, পালস, রাস, সিকেলি,সিফি, সাইলি,স্ট্যাফি, স্ট্র্যামো, সালফ,ট্যারেন্টু,জিঙ্ক ।
৪) ঘৃণা হতে রোগ ( Scorn) – A= ব্রায়ো, ক্যামো, নাক্স-ভ। B= অরাম, কলো, প্যারিস, ফস, প্ল্যাটি।
৫) ধীরতা (Slowness)- A= কোনি, হেলি, ফস।
B= অ্যানাকা, কলো, কার্বো-ভে, গ্র্যাফ, ওপি, পালস, সিপি ।
৬) স্বল্পবাক/নির্বাক ( Silent) -অরাম, কার্বে-অ্যানি,ককুল,গ্লোন, নাক্স-ম, ফস-অ্যাসি, ফস, প্ল্যাটি, পালস, সালফ,ভিরেট,জিঙ্ক । B= অ্যাকোন, অ্যাগারি, অ্যান্টি-ক্রু, আর্জ-মে, আর্জ-নাই, আর্নি, আর্স, ব্যারা-কা, বেল, ক্যাল্ক, ক্যাপসি, কস্টি, চায়না, সিমিসি, কলো, ফেরাম, জেলস, হেলি, হিপার, হিপ্পো, হায়োস, ইগ্নে, লাইকো, ম্যাগ-মি, মিউ-অ্যাসি, ন্যাট্র-মি, ন্যাট্র-সাল, নাই-অ্যাসি, নাক্স-ভ, রাস, স্ট্যানা, স্ট্যাফি, স্ট্র্যামো, ট্যারেন্টু, থুজা।
৭) জিনিসপত্র ছুড়ে ফেলে ( Throws things away) A= স্ট্যাফি। B= সিনা, ক্রিয়ো। C= আর্স, ব্রায়ো, ক্যাল্ক ক্যামো, কলো, কফি, ডালকা, ট্যারেন্টু, থিয়া।
৮) আকুঞ্চন : অভ্যন্তরীণ- A= বেল, ক্যাক্টা, চায়না, কলো, ইগ্নে, ম্যাগ-কা, ন্যাট্র-ফস, নাই-অ্যাসি, নাক্স-ভ, প্ল্যাটি, প্লাম্বা, পালস, স্ট্র্যামো, সালফ।
৯) আহারের পরে বাড়ে- A- অ্যালোজ, আর্স, ব্রায়ো,ক্যাল্ক, ক্যাল্ক-ফস, কস্টি, কলো, কোনি, ক্যালি-বাই, ক্যালি-কা, ল্যাকে, লাইকো, ন্যাট্র-মি, নাক্স-ভ, ফস, পালস, রিউমেক্স, সিপি, সাইলি, সালফ।
১০) খাদ্য : ফলে বাড়ে- A= আর্স, ব্রায়ো, চায়না, কলো, ন্যাট্র-সাল, পালস, ভিরেট।
১১) ব্যথাশূন্য পাশে শুলে বাড়ে- A= ব্রায়ো, ক্যামো, কলো, পালস।
১২) সঞ্চালনে বাড়ে (Motion agg.) A= বেল, বিসমা, ব্রায়ো, চেলিডো, চায়না, ককুল, কলচি, কলো, গুয়াই, লিডাম, মার্ক, নাক্স-ভ, র্যানান-বা, স্যাবি, সাইলি, সালফ।
১৩) পোকা হাঁটার মতো অনুভুতি – অভ্যন্তরীণ-
A= কলো, প্ল্যাটি, রাস, স্যাঙ্গুই, সালফ।
১৪.১) ব্যথা : কেটে ফেলার মতো অভ্যন্তরীকভাবে- A= বেল, ক্যাল্ক, ক্যান্হা, কলো, কোনি, ডায়োস্কো, গ্যাম্বু, হায়োস, ক্যালি-কা, লাইকো, মার্ক, ন্যাট্র-মি, নাক্স-ভ, পালস, সাইলি সালফ।
১৪.২) ব্যথা : টেনে ধরার মতো- A= কার্বো-ভে, চেলিডো, কলো, গ্র্যাফ, নাই-অ্যাসি, ভ্যালের।
১৪.৩) ব্যথা : চিমটি কাটার মতো অভ্যন্তরিক – A= আর্স, আর্স-আই, চেলিডো, কলো, গ্র্যাফ, ইগ্নে, লাইকো, ভার্বাস।
১৪.৪) ব্যথা : ক্ষতের মতো মোচড়ানো ব্যথা-
A= আর্জ-নাই, আর্নি, সাইকু, সিমিসি, সিনা, কলো, ড্রসে, হ্যামামে, প্ল্যাটি, পাইরো, রাস, রুটা, সাইলি।
১৫) চাপে উপশম- A= ব্রায়ো, কলো, কোনি, লিলি-টি, ম্যাগ-মি, ম্যাগ-ফস, ন্যাট্র-কা, প্লাম্বা, পালস, সাইলি।
১৬) ডান দিক (Right) A= আর্জ-মে, আর্স, অরাম, ব্যাপটি, বেল, ব্রায়ো, ক্যাল্ক, ক্যান্থা, চেলিডো,
কলো, কোনি, ক্রোট-কা, ক্রোট-হ,লাইকো, নাক্স-ভ, পালস, স্যাঙ্গুই,সার্সা, সিকেলি।
১৭) টানটান ভাব বাহ্যিকভাবে- A= ব্যারা-কা, ব্রায়ো, কস্টি, কলো, কোনি, ফস, প্ল্যাটি, প্লাটি, পালস, রাস, স্ট্রনসি, সালফ, ভার্বাস।
২০) স্পর্শে উপশম- A= ক্যাল্ক, সাইক্লে, মিউ-অার্স। B= আর্স, বিসমা, ব্রায়ো, কলো, কোনি, ম্যাঙ্গে, মিনি, ফস।
২১) দুর্বলতা/ক্লান্তিঃ স্নায়ুবিক- A= চায়না, কলো, ল্যাকে, ন্যাট্র-কা, ন্যাট্র-ফস, নাই-অ্যাসি, পিক্রি-অ্যাসি, পালস, সিপি, সিলি, স্ট্যানা, স্ট্যাফি।
#সংকলনে: ডা.এইচ.এম.আলীমুল হক
ডিএইচএমএস (বিএইচবি), কিউএইচসিবি (বিইউবি)
চেম্বার: আলহক্ব হোমিও ফার্মেসী, মৌচাক, মিজমিজি
সিদ্ধিরগঞ্জ, নারায়ণগঞ্জ, ঢাকা, বাংলাদেশ।
চিকিৎসা বিষয়ক পরামর্শের জন্য ১০০টাকা বিকাশ করুন এই নাম্বারে ০১৯১৬-৫১১ ৩৩৭ (পার্সনাল)। তারপর (সকাল ৯.৩০ থেকে রাত ৯.৩০ পর্যন্ত। নামাজের সময় ছাড়া) কল করুন এই নাম্বারে: 01616-511337, 01816-511337