Argent Nitric (আর্জেন্ট নাইট্রিক):গুরুত্বপূর্ণ রুব্রিকসহ

৬০.১। Argent Nitric (আর্জেন্ট নাইট্রিক)।
DHMS ( 4th year).
♣ সমনামঃ আর্জেন্ট নাইট্রাস, সিলভার নাইট্রেট, নাইট্রেট অব সিলভার,।
♣ মায়াজমঃ সোরিক, সাইকোটিক,সিফিলিটিক, টিউবারকুলার ।
♣ কাতরতাঃ গরমকাতর।
♣ সাইডঃ ডানপাশ, ডান দিক তারপর বাম, বামপাশ, ওপরে বামদিক নিচে ডানদিক ।
♣ উপযোগিতাঃ হিস্টিরিয়াগ্রস্ত নার্ভাস ব্যক্তিদের ; মানসিক কারণে যাদের মেজমেজে মাথাব্যথা । যে সব মহিলাদের মাসিকস্রাবে বিশৃঙ্খলা। রোগা যুবকদের বুড়োদের মতো দেখতে এরূপ রোগী পেলেই আর্জ-নাই – এর কথা চিন্তনীয় (পাতলা, রোগা-সিকেল) ।
♣ ক্রিয়াস্থলঃ মন, সেরিব্রোস্পাইন্যাল নার্ভ, উদরের মিউকাস মেমব্রেন, পাকস্থলী, অন্ত্র, চোখ, গলা, মূত্রনালি, পেরিঅস্টিয়াম বা অস্হি আবরক পর্দা, চামড়া, রক্ত (এর দ্বারা লাল রক্তকণিকা নষ্ট হয় ও ক্রমশ শরীর ক্ষয় হয়) ।
♣ ফিজিওলজিক্যাল কাজ (Physiological action) – মস্তিষ্ক এবং মেরুদণ্ডে এর যথেষ্ট কাজ প্রকাশ পায় এবং তা হতে এমন সব লক্ষণ আবির্ভূত হয় যা দ্বারা স্নায়বিক রোগে নানান অবস্হায় এটি যে একটি উপযুক্ত ওষুধ তার সম্পূর্ণ পরিচয় প্রদান করে। রোগী মনে করে শরীরে কোনো বিশেষ অংশ যেনো প্রসারিত হচ্ছে এবং এ লক্ষণ এ ওষুধের এতো বেশী বিশেষত্ব যে, একে সর্বজনীন লক্ষণ বলা যেতে পারে এবং এটি সচরাচর অধিকাংশস্হলে শিরঃপীড়া অথবা ডিম্বাশয়ের রোগ বর্তমান থাকতে দেখা যায় ।
♣ সারসংক্ষেপঃ হিস্টিরিয়াগ্রস্ত নার্ভাস ও কৃশ ব্যক্তি । আকুঞ্চন, বেড়ে যাওয়া, কাঁটা বা পেরেক ফুটানো ও বন্ধনী থাকার অনুভূতি । ব্যথা- সহসা আসে ও সহসা বা ধীরে ধীরে যায় । অসাড়তা, আক্ষেপ, কাঁপা বাহ্যিক ও অভ্যন্তরীণভাবে। মানসিক ও দৈহিক পরিশ্রমে, উত্তাপে, পিঠা, মিষ্টিদ্রব্য, মসলাদার ও টক খাদ্যে বাড়ে । ঠাণ্ডায়, গরম পানীয়ে ও খাদ্যে এবং মাথায় শক্ত ব্যান্ডেজ বাঁধলে উপশম । ব্যস্ত ও ত্রস্তভাব। উৎকণ্ঠ ও অমঙ্গলের আশঙ্কা । ভ্রান্ত বিশ্বাস, শিশুসুলভ ব্যবহার, ক্রোধ, প্রতিকূল-আচারী, একগুঁয়েমি, বিস্তৃতিপরায়ণ, নৈরাশ্য । মলের রঙ পরিবর্তনশীল ও বায়ু নিঃসরণ । পানীয় পানে বা তরল কিছু পান করার মাত্রই মলত্যাগে যেতে হয় ।
♣ অদ্ভুত মানসিক লক্ষণঃ একটি মানসিক অদ্ভূত লক্ষণ হলো আশঙ্কা ও ভয়: যখন চার্চে যাওয়ার জন্য প্রস্তুত হয় অথবা অন্য কোথাও তখন ডায়রিয়া দেখা দেয় ।
♣ অনুভূতিঃ অনুভূতি যেনো সাঁড়াসি দিয়ে নিষ্পষণ করছে । শরীরের বিভিন্ন সংকোচনের অনুভব যেনো লোহার পাত বুকের চারপাশে অথবা কোমরে টাইট করে বাঁধা রয়েছে আধকপালে মাথাব্যথা বা গর্ভাবস্হায় মনে করে যেনো মাথা অস্বাভাবিকভাবে বড়ো হয়ে গেছে ; শক্ত করে বাঁধলে উপশম ।
♣ ক্রম ও সহচর লক্ষণঃ * ধ্বজঃভঙ্গের কথা চিন্তা করলে ধ্বজঃভঙ্গ বেড়ে যায়।
** ফুসফুসের রক্তক্ষরণের সাথে সবিরাম জ্বর ।
*** উঁচুকণ্ঠে গান গাইলে কাশি হয় ।
♣ বৃদ্ধিঃ প্রাতে, অপরাহ্নে, সন্ধাকালে, উত্তেজনায়, উৎকণ্ঠা, গরম ঘরে, ঘরের মাঝে, স্টোভ বা উনুনের গরমে, মানসিক ও দৈহিক পরিশ্রমে, চিনি, পানি পানে, ডানদিকে শয়নে, শীতল পানীয়ে, ঠাণ্ডা খাবার, আইসক্রীম, রাতে অথবা সকালে ওঠলে, ঋতুস্রাবের সময়, মানসিক আবেগ, উত্তাপে, পিঠা, মিষ্টিদ্রব্য, মসলাদার ও টক খাদ্যে, খাবারের পরে, আর্দ্র আবহাওয়ায়, ব্যায়ামে, ঘুমের শুরুতে, ঘুমের সময়ে, গ্রীষ্মকালে, অনাচ্ছাদনে, ঝাঁকিনি লাগায়, একপাশে চেপে ও বামপাশে শুলে ।
♣ হ্রাসঃ ঠান্ডা বাতাসে, ঠান্ডা প্রয়োগে, ঠান্ডা পানিতে গোসল, দৃঢ় চাপনে, সঞ্চালনে, গরম পানীয় পানে ও খাদ্যে, মুক্ত বাতাসে, ঢেকুর ওঠলে, নাকের ওপর দিয়ে বাতাস বইলে, মাথায় শক্ত ব্যান্ডেজ বাঁধলে।
♣ কারণঃ বল প্রয়োগে চোখের কাজ, অমঙ্গলের আশঙ্কা থেকে পীড়া, ভয় বা আতঙ্ক, বরফ খাওয়া, মানসিক পরিশ্রমে ও মানসিক কষ্টভোগ, হস্তমৈথুন ও ইন্দ্রিয়ের অপব্যবহার, চিনি, তামাক, মিষ্টি খেলে, পুষ্টিকর খাবারের অভাব, মদ জাতীয় উত্তেজক পদার্থ।
♣ ইচ্ছাঃ খোলা বাতাসে, লবণাক্ত খাদ্য, মিষ্টি, চিনি।
♣ অনিচ্ছাঃ খাদ্য।
♣ অসহ্যঃ পোশাক।
♣ ক্রিয়ানাশকঃ আর্স, অ্যাসিড-নাই, ক্যাল্ক, আয়োড, মার্ক, ন্যাট্র-মি, পালস, সিপি, লাইকো, ফস, রাস, সাইলি,সেলি, সালফ ও দুধপানে।
♣ এটি ক্রিয়ানাশকঃ অ্যামোনিয়াম, কষ্টি, তামাকের কুফল।
♣ শত্রুভাবাপন্নঃ কফি, ভেস্পা।
♣ প্রয়োগঃ ১) এটি পাকস্থলীর দীর্ঘদিনের স্থায়ী এবং দুর্দমনীয় প্রকৃতির ক্ষত আরোগ্য করেছে। যেখানে রক্ত বমিও ছিল।— ডা. জে.টি. কেন্ট ।
২) গ্যারেন্সি বলেন- রোগী শুকিয়ে গেছে এমন রোগী দেখলেই আমরা আর্জেন্ট এর কথা মনে করি। ——-ই.বি.ন্যাস
উপরোক্ত লক্ষণ সাদৃশ্যে যে কোন রোগেই আমরা আর্জ-নাই প্রয়োগ করতে পারবো।
গুরুত্বপূর্ণ কয়েকটি রুব্রিকঃ
১) ক্রোধ ( Anger) – কল্পনাসহ : B- অরাম, নাই-অ্যাসি। C- অ্যাম্ব্রা, আর্জ-নাই, চেলিডো, কোপেই, ড্যাফ, ফেরা-ফস, প্যালাডি, ফস, সিপি।
২) অমঙ্গলের আশঙ্কা ( Anticipation) থেকে পীড়া- B- আর্জ-নাই, জেলস। C- আর্স, লাইকো, মেডো, ফস-এসিড।
৩) প্রতিকূল -আচারী (Contrary – A- অ্যালু, অ্যানাকা, আর্জ-নাই। B- আর্নি, ককুল, হিপার, ক্যালি-কা, মার্ক, নাই-অ্যাসি, নাক্স-ভ, পালস, সালফ।
৪.১) ভ্রান্ত বিশ্বাস( Delusions) : A- আর্জ-নাই, বেল, ক্যানা-ই, ককুল, হায়োস, ইগ্নে, ল্যাকে, পেট্রো, ফস-এসিড, স্যাবাডি, স্ট্র্যামো, সালফ।
৪.২) ভ্রান্ত বিশ্বাস : মনে করে সে পরিত্যক্ত, বন্ধুশূন্য- A- আর্জ-নাই। B- সাইক্লে, লিলি-টি, প্ল্যাটি, স্ট্র্যামো।
৪.৩) ভ্রান্ত বিশ্বাস : যেনো অন্যের দ্বারা ঘৃণিত- A- আর্জ-নাই। B- হুরা, ল্যাক-ক্যান।
৫) অলসভাব : শিশুদের – A- আর্জ-নাই, ব্যারা-কা, ক্যাল্ক-ফস, সালফ।
৬) মানসিক পরিশ্রমে বৃদ্ধি (Exertion) : – A- আর্জ-মেট, আর্জ-নাই, অরাম, ক্যাল্ক, ক্যাল্ক-ফস, ইগ্নে, ক্যালি-ফস, ল্যাকে, লাইকো, ন্যাট্র-কা, ন্যাট্র-মি, নাক্স-ভ, সেলিনি, সিপি, সাইলি, স্ট্যাফি।
৭.১) ভয়( Fear) A- অ্যাকোন, আর্জ-নাই, অরাম, বেল, বোরা, ক্যাল্ক, ক্যাল্ক-ফস, কার্বো-সাল, সাইকু, গ্র্যাফ, ক্যালি-আর্স,
৭.২) ভয় : একাকি থাকলে – A – আর্জ-নাই, আর্স, ক্রোটন, হায়োস, ক্যালি-কা, লাইকো, ফস।
৭.৩) ভয় : গীর্জায় বা অপেরায় যেতে প্রস্তুত হলে – A- আর্জ-নাই। B- জেলস।
৭.৪) ভয় : কোনো বিশেষ মোড় অতিক্রম করার – B- আর্জ-নাই, ক্যালি-ব্রো।
৮) ভান করে রোগের (Feigning sick) – B- ট্যারেন্টু।
B- আর্জ-নাই, বেল, ভিরেট।
৯) ভয়প্রাপ্ত সহজে (Frightened easily) – A- আর্জ-নাই, আর্স, ব্যারা-কা, বোরা, গ্র্যাফ, লাইকো, ন্যাট-আর্স, ন্যাট্র-কা, সিপি, স্ট্র্যামো।
১০) উঁচুস্থানে বাড়ে ( High places, agg) – B- আর্জ-নাই, অরাম, সালফ। C- জেলস, পালস, স্ট্যাফি।
১১.১) তাড়াতাড়ি করে ( Hurry) : A- লিলি-টি, মেডো, মার্ক, ন্যাট্র-মি, সালফ, সাল-অ্যাসি, ট্যারেন্টু। B- অ্যাকোন, আর্জ-নাই, আর্স, আর্স-আই, ব্যারা-কা, ব্রায়ো, ক্যাম্ফ, কার্বো-সাল, কফি, হিপার, ইগ্নে, ক্যালি-কা, ল্যাকে, নাক্স-ভ, ফস-এসিড, পালস, স্ট্র্যামো, থুজা।
১১.২) তাড়াতাড়ি করে : আগের নির্ধারিত সময় আসলে- A- আর্জ-নাই।
১১.৩) তাড়াতাড়ি করে : চলার সময়- A- আর্জ-নাই, সাল-অ্যাসি। B- সালফ, থুজা। C- অ্যাকোন, ক্যান্থা, আই, মস্কাস, স্ট্র্যামো, ট্যারেন্টু।
১২) আবেগপ্রবণ ( Impulsive) A- আর্জ-নাই।
B- আর্স, অরাম, সাইকু। C- ক্যাম্ফ, জিনসিং, মার্ক, নাক্স-ভ, রাস, স্ট্যাফি, থিয়া।
১৩) ঔদাসীনতাঃ জনসমাজে থাকাকালে –
A- আর্জ-নাই। B- ক্যালি-কা। C- বোভি, ন্যাট্র-কা, ন্যাট্র-মি, প্লাটি, রাস।
১৪) একগুঁয়ে ( Obstinate)/ জেদী ( Stubborn) – A- অ্যালু, অ্যানাকা, আর্জ-নাই, ক্যাল্ক, ক্যামো, নাক্স-ভ।
১৫) খোলা বাতাসে উপশম- A=অ্যালু, আর্জ-নাই, আর্স, ক্যানা-ই, আই, ক্যালি-আই, ম্যাগ-কা, ম্যাগ-মি, ন্যাট্র-সাল, পালস, রাস, স্যাবাডি, স্যাবি ।
১৬) উৎকন্ঠা ( Anxiety) : সর্বাঙ্গীন, দৈহিক – A- আর্জ-নাই, আর্স, ক্যাম্ফ, ক্যামো, ডিজি, ইপি, নাক্স-ভ, ফস-এসিড, ফস, পালস, সালফ।
১৭) পোশাক অসহ্যবোধ হয় ( Clothing, intolerance of) – A- আর্জ-নাই, ক্যাল্ক, ক্রোট-ক্যাল্ক, ল্যাকে, লাইকো, নাক্স-ভ, ওনোস, স্পঞ্জি।
১৮.১) আক্ষেপ : সংজ্ঞাহীনতাসহ- A- আর্জ-নাই, বিউফো, ক্যাল্ক, ক্যান্থা, সাইকু, ফেরাম, হায়োস, ওনান, প্লাম্বা, ভিসকা।
১৮.২) আক্ষেপ : মৃগীরোগ সংক্রান্ত – A- আর্জ-মে, আর্জ-নাই, ব্যারা-কা, বিউফো, ক্যাল্ক-আর্স, কস্টি, কুপ্রা, হায়োস, ওনান, প্লাটি, সাইলি, সালফ, ভিন্কা।
১৯) খাদ্য : মিষ্টান্নে বাড়ে – A- আর্জ-নাই, ইগ্নে। B- অ্যান্টি-ক্রু, ক্যামো, গ্র্যাফ, মার্ক, চেলি, স্পাইজে, সালফ।
২০) কাঁপা বাহ্যিকভাবে ( Trenbling externally) – A- অ্যাম্ব্রা, অ্যান্টি-টা, আর্জ-নাই, আর্স, সাইকু, ককুল, কোনি, জেলস, ল্যাকে, মার্ক, ন্যাট্র-মি, ওপি, প্লাটি, পালস, রাস, স্ট্র্যামো, সালফ, থ্যারিডি, জিন্ক।
২১.১) দুর্বলতা/ক্লান্তি : মাঝে মাঝে সময়ান্তর – A- আর্জ-নাই।
২১.২) দুর্বলতা/ক্লান্তি : কম্পমান – A- আর্জ-নাই, কোনি, স্ট্যানা। B- অ্যাগারি, অ্যালু, অ্যানাকা, অ্যাপিস, আর্স, ব্যাপটি, ককুল, ক্রোট-হ, জেলস, ক্যালমি, নাই-অ্যাসি, ফস, প্লাটি, পালস, সিপি।
#সংকলনে: ডা.এইচ.এম.আলীমুল হক
ডিএইচএমএস (বিএইচবি), কিউএইচসিবি (বিইউবি)
চেম্বার: আলহক্ব হোমিও ফার্মেসী, মৌচাক, মিজমিজি
সিদ্ধিরগঞ্জ, নারায়ণগঞ্জ, ঢাকা, বাংলাদেশ।
চিকিৎসা বিষয়ক পরামর্শের জন্য: ১০০টাকা বিকাশ করুন
(বিকাশ পার্সনাল: ০১৯১৬-৫১১ ৩৩৭) তারপর কল করুন
এই নাম্বারে: 01616-511337, 01816-511337