(35) Selenium (সেলিনিয়াম)

♣ সমনামঃ সেলিনিয়াম ।
♣ মায়াজমঃ সোরিক, সাইকোটিক, সিফিলিটিক, টিউবারকুলার।
♣ কাতরতাঃ উভয়কাতর।
♣ উপযোগিতাঃ শীর্ণতা : আক্রান্ত অঙ্গে, বিশেষ অঙ্গে, জৈব তরল পদার্থের ক্ষয়, স্তনদুগ্ধপায়ী শিশু, অকাল বার্ধক্য, বুড়া ব্যক্তি; যাদের রঙ ফর্সা, সুন্দর চেহারা অথচ মুখ, হাত, পা, পায়ের পাতা বা দেহের কোনো একটি অঙ্গ বেশীরকম শুকিয়ে যায় তাদের পক্ষে উপযোগী।
♣ ক্রিয়াস্থলঃ স্নায়ুতন্ত্র, শ্বাসনালি, কণ্ঠনালি, যকৃত, জননযন্ত্র, মূত্রযন্ত্র, লিভারের ওপর ক্রিয়া করে।
♣ প্রয়োগক্ষেত্রঃ ভুলোমন, মাথা-যন্ত্রণা, চুলপড়া, মদ পানে ইচ্ছা, রাতে ক্ষুধার্ত, কোষ্ঠাবদ্ধতা, অসাড়ে প্রস্রাব, ধ্বজঃভঙ্গ, বেদনাযুক্ত লিঙ্গোত্থান, স্বরলোপ, টাইফয়েডের পরবর্তী লক্ষণ, চুলকানিযুক্ত চর্মরোগ।
♣ বৈশিষ্ট্যঃ সেলিনিয়াম হাড় ও দাঁতের আবশ্যকীয় উপাদান। জননেন্দ্রিয় ও প্রস্রাবযন্ত্রের ওপর বিশেষ কাজ এবং প্রায়ই বয়স্ক লোকদের, বিশেষতঃ প্রস্টেট গ্রন্হির প্রদাহ ও রতিজ অক্ষমতায় সূচিত হয়। অত্যন্ত দুর্বলতা, উত্তাপে বাড়ে। বুড়ো বয়সে অতি সহজে মানসিক ও শারীরিক অবসাদ। অবসাদের রোগের পরবর্তী দুর্বলতা।
♣ সারসংক্ষেপঃ জৈব তরল পদার্থের ক্ষয়, অতিরিক্ত শুক্রক্ষয় বা অতিদীর্ঘ রোগভোগের পর স্তনদুগ্ধপায়ী শিশু, অকাল বার্ধক্য, বুড়া ব্যক্তিদের শীর্ণতা। মাথা ব্যথার সময় কানে বায়ুপ্রবাহ হওয়ার অনুভূতি। বায়ু প্রবাহে, শুক্রপাতে, জৈবিক তরল পদার্থের ক্ষয়ে, শারীরিক ও মানসিক পরিশ্রমে, রোদে, লেমনেড খেলে, লবণে, টক খাদ্যে ও চা পানে বাড়ে। সূর্যাস্তের পর, ঠাণ্ডা পানীয় পানে, রক্তস্রাবে, অনাচ্ছাদিত হলে ও ঠাণ্ডা ঘরে কমে। মনোসংযোগ, স্মৃতিশক্তির দুর্বলতা, ভয়, উত্তেজনাপ্রবণতা, বিষণ্নতা, বিরূপভাব, বাচালতা, ধর্মানুরাগ ও ধর্মান্ধাতা। ধ্বজভঙ্গসহ কামবিষয়ক চিন্তা। প্রস্টেটগ্রন্হির স্ফীতি বা ফোলার ক্ষেত্রে মূল-মূত্র ত্যাগের পর ফোঁটা ফোঁটা প্রস্রাব পড়ে। হালকা ও আধা ঘুমে সার্বদৈহিক লক্ষণের উপশম হয়। স্বরভঙ্গ ও কোষ্টকাঠিন্য। তৈলাক্ত ও লবণাক্ত ঘাম।
♣ অনুভূতিঃ ১) মাথা ব্যথার সময় কানে বায়ুপ্রবাহ হওয়ার অনুভুতি।
♣ ক্রম ও সহচর লক্ষণঃ ১) প্রস্টেটগ্রন্হির স্ফীতি বা ফোলার ক্ষেত্রে মূল-মূত্র ত্যাগের পর ফোঁটা ফোঁটা প্রস্রাব পড়ে। ২) টাইফয়েড জ্বরের পর পিঠের দুর্বলতা। ৩) লেমনেডে মাথা ব্যথা হয়। ৪) বীর্যে অস্বাভাবিক গন্ধ। ৫) হালকা ও আধা ঘুমে সার্বদৈহিক লক্ষণের উপশম হয়।
< বৃদ্ধিঃ প্রাতে, অপরাহ্নে, রাতে, বায়ু প্রবাহে, খোলা বাতাসে, সঙ্গমকালে ও পরে, আহারের পরে, শুক্রপাতে, খাদ্য: লেমনেড খেলে, লবণে, টক খাদ্যে, চা পানে, বিছানায় শুলে, সঞ্চালনে, ঘামের পর লক্ষণ, ট্রেনের কামড়ায় বা গাড়িতে, অতিরিক্ত যৌনক্রিয়ার পর, ঘুম থেকে জাগরণে, রোদে, গীষ্মে, অতিরিক্ত যৌনাচারে, নিদ্রার ব্যাঘাত ঘটলে, রাত জাগরণে, স্পর্শে, নিদ্রার পর, গান গাইলে, মলত্যাগের পর, মদ জাতীয় উত্তেজক পদার্থে, জৈবিক তরল পদার্থের ক্ষয়ে, জ্বরে, উত্তাপে, শারীরিক ও মানসিক পরিশ্রমে, গরম আবহাওয়ায়, কুইনাইন সেবনে।
> হ্রাসঃ সূর্যাস্তের পর, ঠাণ্ডা বাতাসের শ্বাস গ্রহণ করলে, ঠাণ্ডা পানীয় পানে, রক্তস্রাবে, অনাচ্ছাদিত হলে, ঠাণ্ডা ঘরে।
♣ কারণঃ অতিরিক্ত সঙ্গমক্রিয়া, দীর্ঘকাল স্হায়ী জ্বর, জৈব তরল পদার্থের ক্ষয়, অতিরিক্ত হস্তমৈথুন, গ্রীষ্মকালে উত্তাপের দরুন শারীরিক ও মানসিক দুর্বলতা, রাতজাগরণ, মদ পানের কুফল, অতিরিক্ত চা পান, ভারি বোঝা তোলা, পেশি ও কন্ডুরাগুলোতে চাপ লাগা।
♣ ক্রিয়ানাশকঃ চায়না, ইগ্নে, পালস ।
♣ শত্রুভাবাপন্নঃ চায়না।
♣ প্রয়োগঃ এর রোগী কী গ্রীষ্ম, কী শীত, কী বর্ষা কোনো সময়ের দমকা হাওয়া বা ঝড় সহ্য করতে পারে না। সেলিনিয়াম বুড়ো বয়সের রোগে এবং গৌরকান্তি রোগীদের পক্ষে বেশি উপযোগী। -ডা. হ্যারিং ।

= উপরোক্ত লক্ষণ সাদৃশ্যে যে কোন রোগেই আমরা সেলিনিয়াম প্রয়োগ করতে পারবো।