Secale cor (সিকেলি কর): গুরুত্বপূর্ণ রুব্রিকসহ

৯৬। সিকেলি কর্নিউটাম (Secale cor)।
D.H.M.S. ( 3rd year).
♣ সমনামঃ আরগোট, আরগোট অব রাই, কম্পার রাই, রাই সরিষাজাত রোগা উদ্ভিদ।
♣ মায়াজমঃ সোরিক, সাইকোটিক, সিফিলিটিক, টিউবারকুলার।
♣ সাইডঃ ডানপাশ, ওপরে বামপাশ।
♣ কাতরতাঃ গরমকাতর।
♣ উপযোগিতাঃ স্নায়ুপ্রধান ধাতুবিশিষ্ট, কৃশ/ শুকনো ব্যক্তি, খর্বতা, রোগা পাতলা, দূর্বল ভগ্নস্বাস্থ্য, খিটখিটে, নার্ভাস প্রকৃতি, ফ্যাকাসে, গায়ের রঙ, মুখ চোখ চুপসে গেছে এমন প্রকৃতির স্ত্রীলোকদের পক্ষে উপযোগী । যে সব মহিলাদের মাংসপেশিতন্তু অত্যন্ত শিথিল, দেহের সবকিছুই শিথিল ও উন্মুক্ত হয়ে গেছে। স্তনদুগ্ধপায়ী শিশু, বুড়ো ব্যক্তি, প্রতিক্রিয়ার অভাব।
♣ ক্রিয়াস্থলঃ মন, মস্তিষ্ক, মেরুমজ্জা, মাংসপেশি, রক্তনালি, জরায়ু, রক্ত, স্নায়ু, কর্ড ও অঙ্গ-প্রত্যঙ্গগুলো।
♣ বৈশিষ্ট্যঃ রক্ত সঞ্চালনে বাধা প্রাপ্তির ফলে শরীরে বরফের মত ঠান্ডা হয়ে যায় অথচ অন্তঃজ্বালা থাকে। কিন্তু গায়ে কোন কাপড় সহ্য করতে পারে না। রাক্ষুসে ক্ষুধা ও অদম্য পিপাসা।
♣ ফিজিওলজিক্যাল কাজঃ এর কাজকে দু ভাগে বিভক্ত করা যেতে পারে- প্রথমতঃ স্নায়বিক বিধান সংক্রান্ত, দ্বিতীয়তঃ রক্ত সঞ্চালন সংক্রান্ত । স্নায়বিক বিধান সংক্রান্ত সিকেলিকরে অদ্ভূত রকম খেঁচুনি উৎপন্ন হয় এবং এ খেঁচুনি সিকেলি করের একটি সর্বপ্রকার লক্ষণ- একবার শরীর আড়ষ্ট হয়ে শক্ত হয়, এ প্রকারে পেশিগুলো পর্যায়ক্রমে আড়ষ্ট এবং শিথিল হতে থাকে- কিন্তু এরূপ অবস্হা বিশেষভাবে হাতের আঙুলে বেশি প্রকাশ পায়। হাত মুঠা করে অথবা হাতের আঙুলগুলো বাইরের দিকে বেঁকে যায়। মুখমণ্ডলের পেশির আনর্তন হতে থাকে এবং মুখমন্ডলে খেঁচুনি আরম্ভ হয়ে সারা শরীরে ছড়িয়ে পড়ে। নিচের পেটের পেশি টেনে ধরে প্রস্রাব অবরোধ হয়, ভীষণ বমনোদ্রেক অথচ বমি কিছুই হয় না, পাকস্হলী ভীষণভাবে সংকোচন হতে থাকে।
♣ সারসংক্ষেপঃ স্নায়ুপ্রধান ধাতুবিশিষ্ট, শুকনো ব্যক্তি, শরীর বরফের মত ঠান্ডা অথচ অন্তঃজ্বালা থাকে। জ্বালা ও গরমকাতরতা। পোকা হাঁটার মতো অনুভূতিঃ অঅভ্যন্তরীণ। গরমে, উষ্ণতায়, বিছানায় শুলে, স্টোভ বা উনুনের গরমে, আবরণে, মাসিক স্রাবের আগে ও গর্ভাবস্হায় বাড়ে। ঠান্ডা বাতাসে, অনাচ্ছাদনে, ঠান্ডা প্রয়োগে, পাখার ও খোলা বাতাসে কমে। অস্থিরতা, স্নায়বিকতা, অবিশ্বাসযুক্ত, দুশ্চিন্তাপূর্ণ, উৎকন্ঠা, উৎসাহহীনতা, লজ্জাহীনতা, স্ত্রীদের কামোন্মাদ, প্রলাপ ও ভ্রান্তবিশ্বাস। শরীর বরফের মতে ঠান্ডা সে সাথে চটচটে ঘাম ও নীলাভতা, আবরণ সহ্য করতে পারে না। নর্তন বা কম্পন প্রথম চেহারায় শুরু হয় তারপরে সারা শরীরে শুরু হয়। জরায়ু ও মলদ্বারের শিথিলতা। রাক্ষুসে ক্ষুধা ও অদম্য পিপাসা।
♣ অনুভূতিঃ
১) শরীরের জ্বালা মনে হয় যেনো আগুনের স্ফুলিঙ্গ চারদিক হয়ে গায়ে পড়ছে ।
২) উত্তাপের অনুভূতি।
♣ ক্রম ও সহচর লক্ষণঃ
১) মলত্যাগকালে জিব সূক্ষ্ণাগ্র দেখায় ।
২) পায়ের পাতায় গ্যাংরিনে জ্বালাকর ও ছিন্নকর ব্যথা হয়।
৩) ঋতুস্রাব ৭দিন হতে ৯দিন পর্যন্ত দীর্ঘস্হায়ী হয়।
৪) হালকা গঠনের স্ত্রীলোকদের ম্যাট্রোরেজিয়া/ অতিরজ:স্রাব।
৫) অতিরজঃকালে নিদ্রাতুর অবস্হা / ঘুম ঘুমভাব।
♣ < বৃদ্ধিঃ পূর্বাহ্নে, রাতে, রাত ৩টা, খাদ্য: রুটিতে, সঞ্চালনে স্পর্শে, কোনো কিছু স্পর্শ করলে প্রকোপ বাড়ে, গরমে, উষ্ণতায়, মুক্তবাতাসে, বিছানায় শুলে, স্টোভ বা উনুনের গরমে, আবরণে, উত্তাপে, দেহের রসরক্ত ক্ষয়ে, ঋতুকালে, মাসিক স্রাবের আগে, গর্ভাবস্থায়।
♣ > হ্রাসঃ ঠাণ্ডা বাতাসে, অনাচ্ছাদনে, আক্রান্ত অঙ্গ দুললে, ঠাণ্ডা প্রয়োগে, হাত পা জোরে টানটান করলে, ঠাণ্ডা পানিতে গোসলে, ঘর্মস্রাবে, ঘর্ষণে, পাখার ও খোলা বাতাসে ।
♣ কারণঃ অতিরিক্ত ইন্দ্রিয় ইচ্ছা, গ্রীষ্মকাতরতা, দুধ, ঘাম এবং লুকিয়া স্রাব অবরুদ্ধে, আঘাত হতে গ্যাংগ্রীন, ভারী বস্তু ওঠানোর জন্য গর্ভস্রাব, নিঃসরণযোগ্য কোনো স্রাব চাপা পড়লে ।
♣ ইচ্ছাঃ অম্ল খাদ্য দ্রব্য, লেবু, মদ, ঠাণ্ডা পানীয়, মিষ্টি।
♣ অনিচ্ছাঃ খাদ্য, মাংস, পানীয়, চর্বি।
♣ ক্রিয়ানাশকঃ ক্যাম্ফ, ওপি।
= উপরোক্ত লক্ষণ সাদৃশ্যে যে কোন রোগেই আমরা,সিকেলি কর্নিউটাম প্রয়োগ করতে পারবো।

গুরুত্বপূর্ণ কয়েকটি রুব্রিকঃ (ক্যান্ট রেপার্টরী অনুযায়ী)
১.১) উৎকণ্ঠা (Anxiety)/ দুশ্চিন্তাপূর্ণ (Cares)/ অমঙ্গল সম্বন্ধে পূর্বাভাষযুক্ত (Forebodings)- A= অ্যাকোন, আর্জ-নাই, আর্স, আর্স-আই, অরাম, বেল, বিসমা, ব্রায়ো, ক্যাক্টা, ক্যাল্ক, ক্যাল্ক-ফস, ক্যাল্ক-সাল, ক্যাম্ফ, ক্যানা-ই, কার্বো-সাল,। কার্বো-ভে, কস্টি, চায়না, কোনি, আই, ক্যালি-আর্স, ক্যালি-কা, ক্যালি-সাল, লাইকো, মেজের, ন্যাট্র-আর্স, ন্যাট্র-কা, নাই-অ্যাসি, ফস, সোরিন, পালস, রাস, সিকেলি, সালফ, ভিরেট।
১.২) উৎকণ্ঠা: ভয়ের সাথে- A= অ্যাকোন, অ্যানাকা, আর্স, কস্টি, ইগ্নে, সোরিন, সিকেলি।
২) প্রলাপ (Delirium) A= অ্যাগারি, আর্স, অরাম-ট্রি,বেল, ব্রায়ো, ক্যানা-ই, চেলিডো, হায়োস, ল্যাকে, লাইকো, নাই-অ্যাসি, ওপি, রাস, সিকেলি স্ট্যামো। B= অ্যাকোন, অ্যাক্টি-স্পি, ইথু, অরাম, ব্যাপটি, ক্যাল্ক, ক্যাম্ফ, ক্যান্থা, কার্বো-সাল, ক্যামো, সাইকু, সিনা, কলচি, কোনি, ক্রোটেল-ক্যাস্ক, ক্রোটেল, ডিজি, ডালকা জেলস, ইপি,মার্ক নাক্স-ম, নাক্স-ভ, ওন্যান্হ, পেট্রো, ফস, পালস, সালফ, ট্যারেবি, ভিরেট, ভিরেট-বি।
৩) বোকার মতো ব্যবহার ( Foolish behavior) / ভাঁড়ের মতো ব্যবহার ( Buffoonery) করে / নির্বোধ ( Silly)- A= হায়োস, স্ট্র্যামো।B= অ্যাপিস, আর্স, ব্যারা-মি, বেল, চায়না, লাইকো, মার্ক, ফস, প্লাম্বা, সিকেলি, ভিরেট।
৪) অস্হিরতা, স্নায়বিকতা (Restlessness, nervousness) /অস্হির (Fidgety) – অ্যাকোন, অ্যানাকা,আর্জ-নাই,আর্স,আর্স-আই,ব্যাপটি,বেল,ক্যাল্ক,ক্যাল্ক -ফস,ক্যাম্ফ,সিমিসি,সাইকু, কলো, কুপ্রা, কুপ্রা-আর্স,ফেরাম, ফেরা-আর্স, হায়োস, লাইকো, মার্ক, প্লাম্বা, পালস, রাস, সিকেলি,সিফি, সাইলি,স্ট্যাফি, স্ট্র্যামো, সালফ,ট্যারেন্টু,জিঙ্ক ।
৫.১) লজ্জাহীন ( Shameless) – A= হায়োস, ফস, সিকেলি। B= স্ট্র্যামো, ট্যারেন্টু, ভিরেট।
৫.২) লজ্জাহীন : জননাঙ্গ বের করে দেখায়- A= হায়োস। B= ফস, সিকেলি, ট্যারেন্টু।
৬) সন্দেহযুক্ত (Suspicious)/অবিশ্বাসযুক্ত -(Distrustful) -A= অ্যাকোন, আর্স, ব্যারা-কা, ব্রায়ো, ক্যানা-ই, কস্টি, সেঙ্ক্রি, সাইকু, ডিজি, ক্যালি-আর্স, আর্স, ল্যাকে, লাইকো, পালস, রাস, সিকেলি, স্ট্যামো, সালফ ।
৭) বাহ্য অঙ্গের কৃষ্ণবর্ণতা (Blackness)- A= আর্স, কুপ্রা, মার্ক, ওপি, সিকেলি, ভিরেট । B= অ্যাকোন, অ্যান্হ্রা, অ্যান্টি-ক্রু আর্জ-নাই, কার্বো-অ্যানি, চায়না, কোনি, ক্রোটেল, ইচিনে, হ্যামামে, নাক্স-ভ, ফস-অ্যাসি, ফস, স্যাম্বু।
৮) পুড়ে যাওয়া ( Burns) – A= আর্স। B= কার্বো-ভে, ক্রিয়ো, রাস, সিকেলি।
৯) শীর্ণতা : আক্রান্ত অঙ্গে – A= গ্র্যাফ, লিডাম, পালস, সিকেলি। B= আর্স, কার্বো-ভে, লাইকো, মেজের, নাই-অ্যাসি, ফস, প্লাম্বা।
১০.১) মূর্ছাকল্পতা : প্রস্রবক্ষেত্রে- A= নাক্স-ভ, পালস, সিকেলি। B= ভিরেট।
১০.১) মূর্ছাকল্পতা : গর্ভাবস্থায়- B= বেল, নাক্স-ম, নাক্স-ভ, পালস। C=সিকেলি, সিপি।
১১) পোকা হাঁটার মতো অনুভুতি (Formication,external parts) A= দেহের বাইরের অংশে- অ্যাকোন, আর্নি,কলসি,নাক্স-ভ, প্লাটি,রাস, সিকেলি, সিপি,স্পাইজে।
১২) উত্তাপের অনুভুতি (Heat)- A= অ্যাপিস, ক্যাল্ক-সাল, ক্যানা-স্যাট, কোক্কাস, কফি, ফ্লু-অ্যাসি, আই, ক্যাল-সাল, লিলি-টি, লাইকো, ন্যাট্র-মি, ন্যাট্র-সাল, পালস, সিকেলি, সালফ, সাল-অ্যাসি, সাল-আই।
১৩.১) প্রদাহ: অভ্যান্তরীকভাবে- A= অ্যাকোন, আর্স, বেল, ব্রায়ো, ক্যান্থা, চায়না, ইচিনে, জেলস, আই, ল্যাকে, মার্ক, নাক্স-ভ, ফস, প্লাম্বা, পালস, সিকেলি, টেরিবি।
১৩.২) প্রদাহ: গ্যাংরীন প্রকৃতি- A= আর্স, ক্যান্থা, ল্যাকে, সিকেলি, সাইলি ।
১৪) কৃশ/ শুকনো ব্যক্তি ( Leam people) : A= অ্যাম্ব্রা, ক্যাল্ক-ফস, সিকেলি, সালফ।
১৫) অসাড়তা (Numbness/নামবনেস) – বাহ্যিকভাবে (Externally/এক্সটারন্যালি) – A- অ্যানাকা, বার্বে, কার্বো-সাল, ককুল, কোনি, গ্রাফ, ক্যালি-কা, লাইকো, ওলিয়ে, ফস-এসিড, ফস, প্লাম্বা, সিকেলি, স্ট্র্যামো।
১৬) বুড়ো ব্যক্তি – A= অ্যাম্ব্রা, অরাম, ব্যারা-কা, কোকা, ক্যালি-কা, লাইকো, ওপি, সিকেলি, সেলি।
১৭) ব্যথা: জ্বালাকর বাহ্যিকভাবে – A= অ্যাপিস, আর্স, অ্যারাম-টি, ব্রায়ো, ক্যাম্ফ, কার্বো-ভে, কার্বো-সাল, কস্টি, ইউফ্রে, আইরি, মার্ক, ন্যাট্র-মি, নাক্স-ভ, ফস-অ্যাসি, ফস, র্যাটান, রাস, সিকেলি, সিপি, সাইলি, স্ট্যানা, সালফ।
১৮) ব্যথা: জ্বালাকর অভ্যিন্তরীকভাবে- A= অ্যাকোন, আর্স, অ্যারাম-টি, বেল, বার্বে, ব্রায়ো, ক্যানা-ই, ক্যান্হা, কার্বো-সাল, গ্র্যাফ, ক্যালি-বাই, মার্ক, মার্ক-কর, মেজের, নাই-অ্যাসি, নাক্স-ভ, ফস, পালস, রাস, স্যাবাডি, স্যাঙ্গুই, সিকেলি, সিপি, স্পাইজে, স্পঞ্জি, সালফ।
১৯) ব্যথা: চাপ দেয়ার মতো ব্যথা অভ্যন্তরীণভাবে – A= আর্জ-নাই, আর্নি, আর্স, অ্যাসাফ, বেল, ব্রোমি, ক্যাল্ক, চায়না, ক্যান্হা, কার্বো-ভে, কলো, কুপ্রা, হ্যামামে, ল্যাকে, লিলি-টি, লাইকো, নাক্স-ভ, পেট্রা, ফস, পালস, রাস, রুটা, স্যাঙ্গুই, স্যাঙ্গু-নাই, সিকেলি, সেনেগা, সিপি, সাইলি, স্পাইজে, স্পঞ্জি, স্ট্যানা, সালফ, ভ্যালের, ভিরেট।
২০) বার্ধক্যজনিত পক্ষাঘাত/ অসাড়ভাব: অঙ্গগুলোর- A= অ্যান্টি-টা, আর্নি, আর্স, বেল, ডালকা, হায়োস, ইপি, পালস, সিকেলি, সাইলি।
২১) নাড়ির গতি অস্বাভাবিক: অতিশয় দ্রুত গতি- A= অ্যাকোন, অ্যাপিস, আর্স, আর্স-আই, অরাম, বেল, ব্রায়ো, কলিন, কোনি, ক্রোট-কা, ফেরা-ফস, জেলস, গ্লোন, আই, মার্ক, ন্যাট্র-মি, নাক্স-ভ, ওপি, ফস-অ্যাসি, ফস, পাইরো, রাস, সিকেলি, সাইলি, স্পাইজে, স্ট্র্যামো, সালফ, ভিরেট-ভি।
২২) ডান দিক (Right) A= আর্জ-মে, আর্স, অরাম, ব্যাপটি, বেল, ব্রায়ো, ক্যাল্ক, ক্যান্থা, চেলিডো,
কলো, কোনি, ক্রোট-কা, ক্রোট-হ,লাইকো, নাক্স-ভ, পালস, স্যাঙ্গুই,সার্সা, সিকেলি।
২৩) গরমে, উষ্ণতায় বাড়ে ( Warm agg.)- A= অ্যালু, অ্যাপিস, আর্স-আই, উইফর্বি, ফেরাম, জেলস, গ্লোন, ক্যালি-ব্রো, আয়োড, লিডাম, পালস, সিকেলি।
২৪) বিছানায় শুলে বাড়ে- A= অ্যাম্ব্রা, ফেরাম, ফেরা-আই, আই, ল্যাকে, লাইকো, মার্ক, ফস, পালস, রিউমেক্স, স্যাঙ্গুই, সিপি, সাইলি, সালফ,ওপি, স্যাবি, সিকেলি।
২৫) আবরণে বাড়ে ( wraps agg.)- A= অ্যাপিস, লাইকো, পালস, সিকেলি, সালফ।
২৬) দুর্বলতা/ক্লান্তি (Weakness enervation) -A= অ্যামন-কা, অ্যান্টি-টা, অ্যাপিস, আর্নি, আর্স, আর্স-আই, ব্র্যাপটি, ব্যারা-কা, ক্যাল্ক, চায়না, কলচি, ফেরাম, ফেরা-আই, ফেরা-মেট। জেলস, গ্র্যাফ , আই, ক্যালি-কা, ক্যালি-ফস, ক্যালমি, ল্যাকে, লরো,মার্ক, মার্ক-কর, মার্ক-সায়ান, নাই-অ্যাসি, নাক্স-ভ, ওলিয়ে, ফস-অ্যাসি, ফস,পিক্রি-অ্যাসি, প্লাম্বা, সোরিন, র্যানান-বা, রাস, সিকেলি, সেলে, সিপি, সিল, স্কুই, স্ট্যানা, স্ট্যাফি, সালফ, টিউবার, ভিরেট ।

#সংকলনে: ডা.এইচ.এম.আলীমুল হক
ডিএইচএমএস (বিএইচবি), কিউএইচসিবি (বিইউবি)
চেম্বার: আলহক্ব হোমিও ফার্মেসী, মৌচাক, মিজমিজি
সিদ্ধিরগঞ্জ, নারায়ণগঞ্জ, ঢাকা, বাংলাদেশ।
চিকিৎসা বিষয়ক পরামর্শের জন্য: ১০০টাকা বিকাশ করুন
(বিকাশ পার্সনাল: ০১৯১৬-৫১১ ৩৩৭) তারপর কল করুন
এই নাম্বারে: 01616-511337, 01816-511337