(32) Rhus Tox (রাস-টক্স)

♣ সমনামঃ আইভি বিষ, পয়জন ওক, পয়জন আইভি, রাস রেডিকেনস।
♣ মায়াজমঃ সোরিক, সাইকোটিক।
♣ সাইডঃ ডানপাশ, ওপরে বামপাশ নিচে ডানপাশ, বামপাশ হতে ডানপাশ।
♣ কাতরতাঃ শীতকাতর।
♣ উপযোগিতাঃ মোটা রক্তপ্রধান ধাতু বিশিষ্ট ব্যক্তি, শ্লেষ্মাক্ষরণ বর্ধিত, স্তনদুগ্ধপায়ী শিশু। হাইড্রোজেনয়েড ধাতু ও বাতরোগযুক্ত ব্যক্তি যারা স্যাঁতস্যাঁতে স্থানে বসবাস করে, পানিতে ভিজে, বিশেষতঃ শরীর অত্যাধিক গরম হয়ে তারপর ঠান্ডা পানিতে ভিজে তার কুফলে অসুখ হলে উপযোগী।
♣ ক্রিয়াস্থলঃ চামড়া, স্নায়ুমন্ডলী, মাংসপেশি, গ্রন্হি, শ্লৈষ্মিক ঝিল্লি, কোষতন্তু, সন্ধিগুলো, গ্রন্থিমালা, রক্তসঞ্চালনমন্ডলী।
♣ বৈশিষ্ট্যঃ উত্তর আমেরিকার সর্বত্র জঙ্গলে, ঝোপে ঝাড়ে হয়ে থাকে, গুল্ম জাতীয় বিষাক্ত লতানো গাছ। মেঘাচ্ছন্ন, বন্ধ গুমোট আবহাওয়ায়, সূর্যাস্তের পর, অন্ধকার স্থানে হয়ে থাকা গাছের তাজাপাতা ফুল হবার সময়ের আগে ওষুধ তৈরি করতে সংগৃহীত হয়।
এর ক্রিয়ায় প্রধানত সঞ্চালনে উপশমশীল পেশির ও বন্ধনীর বাত; সঞ্চালনে বর্ধনশীল পক্ষাঘাত, বিশ্রামে উপশমশীল মাথার শিরায় রক্তসঞ্চয়, ক্ষুধাহীনতা এবং ক্ষুধার বিলক্ষণতা, উদরে বায়ুসঞ্চয়জনিত পরিপোষণ যন্ত্রের দুর্বলতা, মুখমন্ডল, গলগহ্বর জননেন্দ্রিয়, পা প্রভৃতি বিবিধ স্থানে কোষময় বিধান তন্ত্ততে।
♣ সারসংক্ষেপঃ জৈব উত্তাপের অভাব। হাইড্রোজেনয়েড ধাতু ও বাতরোগগ্রস্ত ব্যক্তি যারা স্যাঁতস্যাঁতে স্থানে বসবাস করে, পানিতে ভিজে। ঠান্ডা বা উত্তাপের অনুভূতি: রক্তবহা নালিগুলোতে। জিবের অগ্রভাগে দাঁতের ছাপ ও ত্রিকোণাকার লাল বর্ণ। প্রাতে, অপরাহ্নে, রাতে, বায়ু প্রবাহে, গোসলে, মেঘলা আবহাওয়ায়, সাধারণভাবে ঠান্ডায়, দৈহিক পরিশ্রমে, শীতল পানাহারে, সঞ্চালন আরম্ভকালে ও বিশ্রামে বাড়ে। খোলা বাতাসে, অবস্হান পরিবর্তনে, গরম পানাহারে, শুয়ে থাকলে উপশম পরে বাড়ে, শুয়ে থাকার পরে, চিৎ হয়ে শুলে, সঞ্চালনে, ঘামের পরে, উনুনের গরমে ও চাপে কমে। অস্থিরতা, খিটখিটে, উত্তেজনাপ্রবণতা, উৎকন্ঠা, বিষণ্নতা, নম্রতা, কাঁদে, প্রলাপ, ভ্রান্ত বিশ্বাস ও ভয়। আত্মহত্যার চিন্তা করে, কিন্তু সাহসের অভাব ও ভীতু প্রকৃতির। রসযুক্ত চর্মরোগ, জ্বরঠুঁটো ও কায়িক শ্রমের স্বপ্ন দেখে। হাঁটলে হাত ও পা পক্ষাঘাতগ্রস্ত মনে হয়।
♣ অনুভূতিঃ ১) পোকা হাঁটার মতো অনুভূতি: অভ্যন্তরীণ, অস্থিগুলোতে, গ্রন্থিগুলোতে। ২) পূর্ণতাবোধ: অভ্যন্তরীণভাবে। ৩) শয্যা কঠিন মনে হওয়ার অনুভূতি। ৪) আড়াআড়িভাবে অনুভূত বাম উর্ধাঙ্গ, ডান নিম্নাঙ্গ।
♣ ক্রম ও সহচর লক্ষণঃ ১) পানিতে ভেজা হতে আমবাত দেখা দেয়। ২) উদ্গার ওঠলে কোমরে/ পিঠে ব্যথা হয়। ৩) ঠান্ডা ভেজা আবহাওয়ায় উর্ধ্বাঙ্গের অবশ ভাব / অসাড়ভাব। ৪) কবজি মচকে যাবার মতো ব্যথা হয়; কোনো কিছুকে আকড়ে ধরলে বাড়ে।

= উপরোক্ত লক্ষণ সাদৃশ্যে যে কোন রোগেই আমরা রাস-টক্স প্রয়োগ করতে পারবো।