Phytolacca (ফাইটোলাক্কা)

ফাইটোলাক্কা (Phytolacca)
উৎসঃ-উদ্ভিজ ঔষধ
#নিজস্বকথাঃ
১। স্তন ও স্তনের যে কোন প্রদাহে।
২। রাতে বৃদ্ধি, শয্যার উত্তাপে বৃদ্ধি, বর্ষায় বৃদ্ধি।
৩। স্পর্শকাতরতা ও অস্থিরতা।
৪। দাঁতে দাঁতে বা মাঢ়িতে মাঢ়িতে চেপে ধরতে ইচ্ছা।
সামগ্রিক লক্ষনঃ-
#ব্যথা, টাটানি, অস্থিরতা, অবসন্নতা এই কয়টি লক্ষণই ফাইটোলক্কার পরিচায়ক। ইহা প্রধানতঃ একটি গ্রন্থি সম্বন্ধীয় ঔষধ। গ্রন্থিগুলির পীড়া ও স্ফীতি, তরুণ ও পুরাতন বা উপদংশ জনিত বাত অস্থিবেদনা, গলগ্রন্থি ফোলা, গলক্ষত, ডিপথেরিয়া, স্তনগ্রন্থি প্রদাহ প্রভৃতি পীড়ায় ইহা সাধারণত ব্যবহৃত হয়।
#শরীরের দক্ষিন দিক বেশী আক্রান্ত হয় ও বেদনা রাত্রে ও বর্ষাকালে বৃদ্ধি প্রাপ্ত হয়। স্থান পরিবর্ত্তনশীল বেদনা, ঠাণ্ডা লাগিয়া বুকের পাঁজরা প্রান্তে বেদনা, গাঁঠ ফোলা, তরুণ বাতেও উপযোগী।
#ইহার রোগীর গলায় কিছু আটকাইবার অনুভুতি, তৎসহ ক্রমাগত গিলিতে চায়, গলমধ্যে ছাইরঙের আস্তরণ, গরম পানীয় পান করিতে অক্ষম।
#জিহ্বার উপর যেন একটুকরা জলন্ত কয়লা রহিয়াছে এরুপ অনুভুতি। মূল আরক মেদ কমানোর ক্ষেত্রে ভাল কাজ করে |
#অনিচ্ছায় জীবনধারন, মনে করে মৃত্যু আসন্ন । বিছানা হইতে উঠিলেই শিরঃঘূর্ণন, মূর্চ্ছাভাব। মস্তকে ও কটিদেশে অত্যন্ত বেদনা, সমস্ত শরীরে থেৎলান ব্যাথা, নড়িবার ইচ্ছা কিন্তু নড়াচড়া করিলেই বেদনার বৃদ্ধি । দন্তদ্গম কালে শিশু যে কোন বস্তু পাইলেই কামড়াইতে চায়।
#ঘাড়ে ও থুতনির গ্লান্ড সমূহের স্ফীতি ।
#ব্রায়োনিয়া ও রাসটক্সের মধ্যবর্তী লক্ষণে যদি উভয় ঔষধে ক্রিয়া না করে তবে ইহা ব্যবহৃত হয়। এই ঔষধটি স্তন টিউমার, পেটের মেদ ও ক্যানসারে খুবই ফলপ্রদ |
#বৃদ্ধিঃ পানিতে ভিজে, বৃষ্টি হতে থাকলে, আদ্র ও ঠান্ডা আবহাওয়ায়, খালি গায় থাকলে, রাতে, নড়াচড়ায় ও ডানদিকে।
#উপশমঃ তাপে, শুষ্ক আবহাওয়ায় ও বিশ্রামে।
#মায়াজমঃ-এ্যান্টিসোরিক, এ্যান্টিসিফিলিটিক ও এ্যান্টিসাইকোটিক ঔষধ |
#কাতরতাঃ-শীতকাতর ঔষধ |
# অনুপূরকঃ সাইলিসিয়া।
#সদৃশঃ ব্রায়োনিয়া, কেলিবাই, মার্কসল।
#প্রতিষেধকঃ বেল, ডিজিটেলিস, ইগ্নেসিয়া।

-ডা. এইচ এম আলীমুল হক, আলহক্ব হোমিও ফার্মেসী,
মুক্তিস্মরণী (চিটাগাংরোড), শিমরাইল মোড়,
সিদ্ধিরগঞ্জ, নারায়ণগঞ্জ, ঢাকা, বাংলাদেশ।
০১৯২০-৮৬৬ ৬১০