Calcarea sulph (ক্যাল্কেরিয়া সালফ): গুরুত্বপূর্ণ রুব্রিকসহ

২৯। ক্যাল্কেরিয়া সালফিউরিকা (Calcarea sulph)
D.H.M.S. ( 2nd year).
♣ সমনামঃ ক্যালসিয়াম সালফেট, ক্যালসিয়াম সালফেট অব লাইম, জিপসাম, প্লাস্টার অব প্যারিস।
♣ মায়াজমঃ সোরিক, টিউবারকুলার, সিফিলিটিস।
♣ কাতরতাঃ গরমকাতর, উভয়কাতর।
♣ উপযোগিতাঃ ঠাণ্ডা লাগার প্রবণতা, প্রতিক্রিয়াহীনতা ও জৈব উত্তাপের অভাব।
♣ ক্রিয়াস্থলঃ সংযোজক কলা, গ্রন্হিগুলো, শ্লৈষ্মিক ঝিল্লি, রক্তাম্বুস্রাবী ঝিল্লি, সিরাস গহ্বর, অস্হি, চামড়া ক্ষয়রোগজনিত ক্ষত, অন্ত্রস্হ স্ফোটক, যেখানে বহুদিন যাবত পূঁজ নিঃসৃত হতে থাকে, একটি ছোট গর্তমধ্যে পূঁজোৎপত্তিই এর সাধারণ নির্দেশক।
♣ বৈশিষ্ট্যঃ ক্যালকেরিয়া সালফ হিপার সালফের নিকট সম্বন্ধযুক্ত ওষুধ। সেই সব ক্ষেত্রে ক্যালকেরিয়া সালফ নির্দেশিত হয়, যেখানে পুঁজ হয়েছে এবং বের হওয়ার পথে। হিপারের সাথে এর পার্থক্য বাতাসের মাঝে স্পর্শকাতরতা, হিপার সামান্য বাতাসে উন্মুক্ত হতে পারে না, ক্যালক সালফ খোলা বাতাসের মাঝে হাঁটলে ভালো থাকে। উভয়টিতেই আবহাওয়া পরিবর্তনে বৃদ্ধি। হিপারের মতো সামান্য স্পর্শে ক্যালক সালফের স্পর্শকাতরতা নেই।
♣ সারসংক্ষেপঃ ঠাণ্ডা লাগার প্রবণতা, প্রতিক্রিয়াহীনতা ও জৈব উত্তাপের অভাব। শরীরের নানাস্হানে ক্রমাগত বড়ো ফোড়া। সকল স্রাব ঘন, পিণ্ডবৎ, হরিদ্রাবর্ণ, রক্ত মিশ্রিত। উত্তাপের ঝলকাবোধ: উত্তপের অনুভূতি । সন্ধাকালে, গোসলে, দৈহিক পরিশ্রমে, গরম ঘরে, দুধে ও আহারকালে বাড়ে । শুষ্ক ও গরম বাতাসে, উত্তাপে ও অনাবৃত হলে উপশম। পরিবর্তনশীল মন, ব্যস্তবাগীশ, বিলাপ করে, অলসভাব, উৎকণ্ঠা, মানসিক অবসাদ, অত্যন্ত ঈর্ষাপরায়ণ, বিষণ্নতা ও ভীরুতা। প্রাতঃকালীন উদরাময় বা কোষ্ঠাবদ্ধতা। ঘর্মগ্রন্হির প্রদাহ। গোসল না করে থাকতে পারে না।
♣ অনুভূতিঃ (১) অনুভূতি- মাথার চারপাশের অনুভূতি যেন টুপি পরা।
(২) উত্তাপের ঝলকাবোধ: উত্তাপের অনুভূতি।
♣ ক্রম ও সহচর লক্ষণঃ (১) কেবল মাএ ঘুম থেকে জাগলে ক্রুপকাশি। (২) ঘর্মগ্রন্হির প্রদাহ।
< বৃদ্ধিঃ সন্ধাকালে, পানিতে কাজ করলে, পানিতে ধোলে, ঠাণ্ডা লাগলে, ঠাণ্ডা বাতাসের ঝাপটা লেগে, স্পর্শে, ভিজলে, নড়াচড়ায়, আবহাওয়ার পরিবর্তনে, বায়ু প্রবাহে, গোসলে, দৈহিক পরিশ্রমে, বাতাসে, বিছানায় শুলে, গরম ঘরে, খাদ্য: দুধে, আহারকালে।
> হ্রাসঃ শুষ্ক ও গরম বাতাসে, খোলা বাতাসে, মুখে ঠাণ্ডা পানি দিলে, উত্তাপে, অনাবৃত হলে, শিরঃপীড়া শীতল বাতাসে।
♣ কারণঃ ভারি বোঝা তোলা, পেশি ও কন্ডুরাগুলোতে চাপ লাগার কুফল, ঘাম চাপা পড়ে ।
♣ ইচ্ছাঃ খোলা বাতাস, কাঁচা ফল, মিষ্টি, লবণ।
♣ অনিচ্ছাঃ দুধ ও মাংস।
♣ অসহ্যঃ সঞ্চালনে।
♣ শত্রুভাবাপন্নঃ কেলি-মিউর।
♣ প্রয়োগঃ কিডনি রোগে উচ্চশক্তি উপযোগী হতে দেখা গেছে। ডা. লুপাজ।
= উপরোক্ত লক্ষণ সাদৃশ্যে যে কোন রোগেই আমরা ক্যালকেরিয়া সালফ প্রয়োগ করতে পারবো।

গুরুত্বপূর্ণ কয়েকটি রুব্রিকঃ
১) উৎকণ্ঠা (Anxiety)/ দুশ্চিন্তাপূর্ণ (Cares)/ অমঙ্গল সম্বন্ধে পূর্বাভাষযুক্ত (Forebodings)- A= অ্যাকোন, আর্জ-নাই, আর্স, আর্স-আই, অরাম, বেল, বিসমা, ব্রায়ো, ক্যাক্টা, ক্যাল্ক, ক্যাল্ক-ফস, ক্যাল্ক-সাল, ক্যাম্ফ, ক্যানা-ই, কার্বো-সাল,। কার্বো-ভে, কস্টি, চায়না, কোনি, আই, ক্যালি-আর্স, ক্যালি-কা, ক্যালি-সাল, লাইকো, মেজের, ন্যাট্র-আর্স, ন্যাট্র-কা, নাই-অ্যাসি, ফস, সোরিন, পালস, রাস, সিকেলি, সালফ, ভিরেট।
২) বিমূঢ়ভাব (Dollness), অলসভাব (Sluggishness), বুদ্ধিহীনতা (Stupidity)- A= আর্জ-নাই, ব্যাপটি, ব্যারা-কা, ব্যারা-মি, বেল, ব্রায়ো, ক্যাল্ক, ক্যাল্ক-ফস, ক্যাল্ক-সাল, কার্বো-ভে, জেলস, গ্র্যাফ, গুয়াই, হেলি, হায়োস, ক্যালি-ব্রো, ক্যালি-কা, লরো, লাইকো, ন্যাট্র-আর্স, ন্যাট্র-কা, ন্যাট্র-মি, নাক্স-ম, ফস-অ্যাসি, পিক্রি-অ্যাসি, পালস, সেনেগা, সিপি, সাইলি, স্ট্যাফি, স্টিলিঞ্জি,সালফ, টিউবার ।
৩) অলসভাব: আহারের পর- B=রাস। C= ক্যাল্ক-সাল,গ্র্যাফ, সাইলি।
৪) বিষণ্নতা, মানসিক অবসাদ (Sadness, mental depression)/ অবসাদ (Dejection)/হতাশভাব (Despondency)/বিষণ্ন (Gloomy)/বিষাদিত (Sorrowful)-A= অ্যাকোন, আর্স, আর্স-আই, অরাম, অরাম-মি, ক্যাল্ক, ক্যাল্ক-আর্স, ক্যাল্ক-সাল, কার্বো-অ্যানি, কার্বো-সাল, কস্টি, ক্যামো, চায়না, সিমিসি, ক্রোটেল-ক্যাস্ক, ফেরাম, ফেরা-আই, জেলস, গ্র্যাফ, হেলি, হিপ্পো, ইগ্নে, আই, ক্যালি-ব্রো, ক্যালি-ফস, ল্যাক-ক্যান, ল্যাকে, ল্যাপ্টে, লিলি-টি, লাইকো, মার্ক, মেজের, মিউরে, ন্যাট্র-আর্স, ন্যাট্র-কা, ন্যাট্র-মি, ন্যাট্র-সাল, নাই-অ্যাসি, প্ল্যাটি, সোরিন, পালস, রাস, সিপি, স্ট্যানা, সালফ, থুজা, ভিরেট।
৫) ভীরুতা (Timidity)/ বিব্রত (Embarrassed)- A= ব্যারা-কা, ক্যাল্ক, ক্যাল্ক-সাল, ক্যালি-কা, লাইকো, ন্যাট্র-কা, পেট্রো, ফস, প্লাম্বা, সালফ।
৬) কাঁদে, অশ্রুপূর্ণ ভাব (Weeping, tearful, mood, etc.)/ ফোঁপিয়ে ফোঁপিয়ে কাঁদে (Sobbing)-A= অ্যাপিস, ক্যাল্ক, ক্যাল্ক-সাল, কার্বো-সাল, কস্টি, সাইকু, গ্র্যাফ, ইগ্নে, ক্যালি-ব্রো, ল্যাক-ক্যান, লাইকো, ন্যাট্র-মি ক্যালাডি, প্ল্যাটি, পালস, সিপি, সালফ, ভিরেট।
৭.১) বড়ো ফোড়া (Abscesses)- A= ক্যাল্ক-আই, ক্যাল্ক-সাল, হিপার, ল্যাকে, মার্ক,সাইলি ।
৭.২) বড়ো ফোড়া : গ্রন্হিস্হানে- A= ক্যাল্ক, ক্যাল্ক-সাল, হিপার, ক্যালি-আই, মার্ক, সাইলি, সালফ।
৮) গোসলে বাড়ে- A= অ্যামন-কা, অ্যান্টি-ক্রু, ক্যাল্ক, ক্যাল্ক-সাল, ক্লিমে, রাস, সিপি, সালফ ।
৯) দৈহিক পরিশ্রমে বাড়ে (Exertion, physical, agg.) A= অ্যালু, আর্নি, আর্স, আর্স-আই, ব্রায়ো, ক্যাল্ক, ক্যাল্ক-সাল, ককুল, কোনি, ফেরা-আই, জেলস, আই, লরো, ন্যাট্র-আর্স, ন্যাট্র-কা, ন্যাট্র-মি, পিক্রি-অ্যাসি, রাস, সেলি, সিপি, স্পাইজে, স্পঞ্জি, স্ট্যানা, স্ট্যাফি, সালফ ।
১০) খাদ্য: দুধে বাড়ে- A= ইথু, ক্যাল্ক, ক্যাল্ক-সাল, চায়না, কোনি, ল্যাক-ডি, নাই-অ্যাসি, সিপি, সালফ ।
১১) রক্তস্রাব (Haemorrhage)- A= আর্নি, বেল, বোথ্রো, ক্যাল্ক, ক্যাল্ক-সাল, ক্যান্থা, কার্বো-ভে, চায়না, ক্রোটেল, ইরিজি,ফেরাম, হ্যামামে, ইপি, মেলিলো, মিলি, ন্যাট্র-মি, নাই-অ্যাসি, নাক্স-ভ, ফস, পালস, স্যাবি, সালফ, সাল-অ্যাসি।
১২) উত্তাপের অনুভূতি (Heat)- A= অ্যাপিস, ক্যাল্ক-সাল, ক্যানা-স্যাট, কোক্কাস, কফি, ফ্লু-অ্যাসি, আই, ক্যাল-সাল, লিলি-টা, লাইকো, ন্যাট্র-মি, ন্যাট্র-সাল, পালস, সিকেলি, সালফ, সাল-অ্যাসি, সাল-আই।
১৩) সঞ্চালনে বিতৃষ্ণা- A= অ্যাকোন, আর্স, বেল, ব্রায়ো, ক্যালাডি, ক্যাল্ক, ক্যাল্ক-সাল,গুয়াই, ল্যাকে, নাক্স-ভ, রুটা, সাইলি, সালফ।
১৪) রক্তের উচ্ছ্বাস (Orgasm of blood)- A= অ্যাকোন, আর্জ-নাই,অরাম, বেল, ক্যাল্ক, ক্যাল্ক-সাল, কার্বো-সাল, ফেরাম, গ্লোন, ক্রিয়ো, ল্যাকে, লাইকো, ফস, স্পঞ্জি, স্ট্যামো, সালফ।
১৫) ঘাম চাপা পড়ে (Supression of)- বেল, ক্যাল্ক, ক্যাল্ক-সাল, ক্যামো, সোরিন, পালস, রাস, সিপি, সাইলি, সালফ ।
১৬) সাধারণ ফোলা: গ্রন্হিগুলোতে (glands)- A= আর্স-আই, ব্যারা-কা, ব্যারা-মি, ব্যারা-আই, বেল, ব্রোমি, ক্যাল্ক-আই, ক্যাল্ক-সাল, ক্যাপসি, কার্বো-অ্যানি, কার্বো-ভে, সিস্টা, ক্লিমে, ডালকা, গ্র্যাফ, হিপার, আই, লাইকো, মার্ক, মার্ক-কর, নাই-অ্যাসি, ফস, প্লাম্বা, রাস, সাইলি, স্পঞ্জি, স্কুই, সালফ, থুজা।
১৭) অর্বুদ/আব (Tumors)- A= ব্যারা-কা, গ্র্যাফ, সাইলি। B= ব্রোমি ক্যাল্ক। C= অ্যাগারি, অ্যাপিস, ক্যাল্ক-সাল, হিপার, নাই-অ্যাসি, সালফ ।
১৮) অর্বুদ : ফাইব্রয়ড (Fibroid)- A= ক্যাল্ক -ক্লোর, ফস, সাইলি। B= ক্যাল্ক-সাল। C= ক্যাল্ক, কোনি।
১৯) গরম ঘরে বাড়ে ( Room agg.)- অ্যাপিস, ক্যাল্ক-সাল, কার্বো-সাল, গ্র্যাফ, ক্যালি-আই, ক্যালি-সাল, লাইকো, পালস, সালফ।
লেখক-Dr. Moin Uddin
সূত্র-অনলাইন কালেকশন
ডা. এইচ এম আলীমুল হক, আলহক্ব হোমিও ফার্মেসী, মুক্তিস্মরণী, চিটাগাংরোড, শিমরাইল মোড়, সিদ্ধিরগঞ্জ, নারায়ণগঞ্জ, ঢাকা, বাংলাদেশ। ০১৯২০-৮৬৬ ৬১০