Mezereum (মেজেরিয়াম): গুরুত্বপূর্ণ রুব্রিকসহ

৭৬। মেজেরিয়াম (Mezereum)।
D.H.M.S. (3rd year).
♣ সমনামঃ মেজেরিয়াম চামেলিয়া জার্মানিকা, স্পার্জ অলিভ।
♣ মায়াজমঃ সোরিক, সাইকোটিক, সিফিলিটিক।
♣ সাইডঃ ডানপাশ, বামপাশ, ওপরে ডানপাশ।
♣ কাতরতাঃ উভয়কাতর।
♣ উপযোগিতাঃ মেজেরিয়াম সাধারণতঃ চামড়ার রোগে, বিশেষত ছোট ছোট ছেলেদের মাথায় চামড়া রোগের প্রাধান্য থাকলে এটি ব্যবহৃত হয়ে থাকে। সর্দি কাশিতে ভোগে, গন্ডমালা স্বভাব অস্হিরচিত্ত ও পাতলা চুল এমন লোকদের রোগলক্ষণে উপযোগী।
♣ ক্রিয়াস্থলঃ চামড়া, জননেন্দ্রিয়, মূত্রনালির শ্লৈষ্মিক ঝিল্লি, অন্ননালী, দীর্ঘহাড় যেমন- টিবিয়া হাড়, দাঁত, স্নায়ু, মন, নার্ভ, অস্থি, মাথা, মুখ, চোয়াল, মিউকাস মেমব্রেন, মুখাভ্যন্তর ও পাকস্হলী। চামড়ার ওপর এর প্রধান ক্রিয়া।
♣ বৈশিষ্ট্যঃ মেজেরিয়ামের প্রতিটি ক্রিয়া “প্রচন্ড” বিশেষণ দ্বারা প্রকাশ করা হয়, যেমন- প্রচন্ড মাথা ব্যথা, প্রচন্ড দাঁত ব্যথা, প্রচন্ড চুলকানি ইত্যাদি। নানা প্রকারের ব্যথা সে সাথে শীতবোধ এবং ঠান্ডাবায়ু অসহ্য। শরীরস্থ চর্বিশূন্য চর্মের অংশে উদ্ভেদ বা একজিমা এবং হাড়ের পীড়া বিশেষতঃ লম্বা হাড়ের যেমন টিবিয়া বোনের পীড়া।
♣ সারসংক্ষেপঃ সর্দি কাশিতে ভোগে, গন্ডমালা স্বভাব অস্হিরচিত্ত ও পাতলা চুল এমন লোকদের। নানা প্রকারের ব্যথা সে সাথে শীতবোধ এবং ঠান্ডাবায়ু অসহ্য। শরীরস্থ চর্বিশূন্য চর্মের অংশে উদ্ভেদ বা একজিম হতে প্রচুর রস নিঃসরণ। পূর্বাহ্নে, সন্ধাকালে, রাতে, গরম খাদ্যে, বিছানায় শুলে, ঘর্ষণে, বিছানার গরমে, অগ্নি উত্তাপে, ঋতুকালে বাড়ে। খোলা বাতাসে, গোসলে, দুধে, আহারে, বিকীরিত তাপে কমে। বিষন্নতা, মানসিক অবসাদ, অস্থিরচিত্ত ও অসহিষ্ণু এবং অমূলক আশঙ্কাযুক্ত, স্মৃতিশক্তির দুর্বলতা, অন্যমনষ্ক, উৎকন্ঠ ও ভয়। টিকাজনিত কুফল বা চর্মরোগ চাপা দেয়ার কুফল। মাথায় ফাটা মামড়িযুক্ত খুস-পাঁচড়া জাতীয় উদ্ভেদ। উদ্ভেদগুলোর নিচে সাদা গাঢ় পূঁজ। সাদা স্রাবের সমস্যার সাথে ঋতুস্রাবের স্বল্পতা।
♣ অনুভূতিঃ গরম খাবার খেলে বুকের মাঝে সুড়সুড়ি বা পোকা হাঁটার অনুভুতি।
♣ ক্রম ও সহচর লক্ষণঃ ১) বিরক্তির পর মাথায় ক্ষতকর ব্যথা। ২) হাতের আঙুলের মাথার দুর্বলতা।
< বৃদ্ধিঃ পূর্বাহ্নে, সন্ধাকালে, রাতে, মধ্য রাতের আগে ও পরে, বায়ু প্রবাহে, আবহাওয়া পরিবর্তনে, সাধারণভাবে ঠান্ডায়, শুষ্ক আবহাওয়ায়, আর্দ্র আবহাওয়ায়, আহারের পরে, বিয়ার মদে, গরম খাদ্যে, বিছানায় শুলে, আক্রান্ত অঙ্গের সঞ্চালনে, ঘর্ষণে প্রকোপ, স্পর্শে, পোশাক ছাড়লে, হাঁটলে, ঠান্ডা বাতাসে, ঠান্ডা পানিতে ধৌত করলে, বিছনার গরমে, অগ্নি উত্তাপে, ঋতুকালে, উদ্ভেদ বসে গেলে, টিকার কুফলে ও পারদের অপব্যবহারে।
> হ্রাসঃ খোলা বাতাসে, গোসলে, আক্রান্ত অঙ্গে পানি দিলে, মুখে ঠান্ডা পানি দিলে, দুধে, মদে, সকল স্নায়ুবিক ও অস্হি বেদনা আচ্ছাদনে, আহারে, ঠান্ডাবিহীন মুক্ত হাওয়ায়, মুখে হাওয়া টানলে, বিকীরিত তাপে।
♣ কারণঃ বসন্তের টিকাদানে, একজিমায় বাহ্য অপপ্রয়োগ, পারদ, বিরক্তি, ক্রোধ, মদ ও ভ্যাকসিন।
♣ ইচ্ছাঃ মদ ও কফি।
♣ ক্রিয়ানাশকঃ মেজেরিয়াম ও মার্ক-সল পরস্পর ক্রিয়ানাশক। অ্যাকোন, ব্রায়ো, ক্যাল্ক, কেলি-আই, কেলি-কা, নাক্স-ভ, অরাম।
♣ এটি ক্রিয়ানাশকঃ মার্ক, নাই-অ্যসি, ফস, অ্যালকোহল।
= উপরোক্ত লক্ষণ সাদৃশ্যে যে কোন রোগেই আমরা মেজেরিয়াম প্রয়োগ করতে পারবো।

গুরুত্বপূর্ণ কয়েকটি রুব্রিকঃ (ক্যান্ট রেপার্টরী)
১) অন্যমনষ্ক ( Absent- minded) / অন্য বিষয়ে নিবিষ্টচিত্ত ( Pre-occupied) – A= অ্যাপিস, ক্যানা-ই, কস্টি, ক্যামো, হেলি, ল্যাকে, মেজের, ন্যাট্র-মি, নাক্স-ম, প্লাটি, পালস, সিপি, ভিরেট।
২) অভিনিবিষ্ট ( Absorbed), চিন্তা-সমাহিত / খেয়ালমতো চিন্তা করে ( Reveries)- A= হেলি, মেজের, নাক্স-ম, ফস। B= আর্নি, ক্যাপসি, কার্লস, ককুল, ন্যাট্র-মি, ওনোস, ওপি, পালস।
৩) উৎকণ্ঠা (Anxiety)/ দুশ্চিন্তাপূর্ণ (Cares)/ অমঙ্গল সম্বন্ধে পূর্বাভাষযুক্ত (Forebodings)- A= অ্যাকোন, আর্জ-নাই, আর্স, আর্স-আই, অরাম, বেল, বিসমা, ব্রায়ো, ক্যাক্টা, ক্যাল্ক, ক্যাল্ক-ফস, ক্যাল্ক-সাল, ক্যাম্ফ, ক্যানা-ই, কার্বো-সাল,। কার্বো-ভে, কস্টি, চায়না, কোনি, আই, ক্যালি-আর্স, ক্যালি-কা, ক্যালি-সাল, লাইকো, মেজের, ন্যাট্র-আর্স, ন্যাট্র-কা, নাই-অ্যাসি, ফস, সোরিন, পালস, রাস, সিকেলি, সালফ, ভিরেট।
৪) মনের বিশৃঙ্খল অবস্হা : কেউ কথা প্রসঙ্গে বাধা দিলে- B= মেজের । C= বার্বে ।
৫) ভ্রান্ত বিশ্বাস: দরিদ্র নিজেকে ভাবে- B= সিপি ।C= বেল, ক্যাল্ক-ফ্লু, হিপার, মেজের, নাক্স-ভ, স্ট্র্যামো, ভ্যালের।
৬) নৈরাশ্য : ধর্মবিষয়ক (আত্মার মুক্তি প্রভৃতি) সম্বন্ধে -A = আর্স, অরাম, ল্যাকে, লিলি-টি, ভিরেট । B= আর্জ-নাই, ক্যাল্ক, ক্যাম্ফর, চেলিডো, লাইকো, মেজের, সোরিন, পালস, স্ট্র্যামো, সালফ, থুজা ।
৭.১) ভয়, পরিশ্রমের- C= ক্যালাডি, গুয়াই, মেজের, ফস-অ্যাসি, ফস, ফাইটো, সালফ-আই, ট্যাবে, থিয়া ।
৭.২) ভয়, হৃদরোগ ওঠলে- C= অরাম, লাইকো, মিনিয়ে, মার্ক-কর, মেজের ।
৭.৩) ভয়, পাকস্হলী হতে ওঠে আসে- A= মেজের। B= অরাম, ক্যাল্ক, ক্যানা-স্যাট, ডিজি, ক্যালি-কা, লাইকো, ফস।
৮.১) স্মৃতিশক্তির দুর্বলতা: যা শুনেছে সে সম্বন্ধে- A= হেলি, হায়োস। B= ল্যাকে, নাক্স-ম।
৮.২) স্মৃতিশক্তির দুর্বলতা: যা বলেছে সে সম্বন্ধে-A= হেলি, হায়োস। B= আর্নি, ব্যারা-কা, ক্যানা-ই, কার্বো-ভে, মেডো, মেজের, মিউ-অ্যাসি, সোরিন।
৯) ধর্মানুরাগ (Religious affections) – A= হায়োস, ল্যাকে, লিলি-টি, সালফ, ভিরেট, জিঙ্ক।
১০.১) বিষন্নতা, মানসিক অবসাদ (Sadness, mental depression) – A= অ্যাকোন, আর্স, আর্স-আই, অরাম, অরাম-মি, ক্যাল্ক, ক্যাল্ক-আর্স, ক্যাল্ক-সাল, কার্বো-অ্যানি, কার্বো-সাল, কস্টি, ক্যামো, চায়না, সিমিসি, ক্রোট-কা, ফেরাম, ফেরা-আই, জেলস, গ্র্যাফ, হেলি, হিপ্পো, ইগ্নে, আই, ক্যালি-ব্রো, ক্যালি-ফস, ল্যাক-ক্যান, ল্যাকে, ল্যাপ্টে, লিলি-টি, লাইকো, মার্ক, মেজের, মিউরে, ন্যাট-আর্স, ন্যাট্র-কা, ন্যাট্র-মি, ন্যাট্র-সাল, নাই-অ্যাসি, প্ল্যাটি, সোরিন, পালস, রাস, সিপি, স্ট্যানা, সালফ, থুজা, ভিরেট।
১০.২) বিষণ্নতা : একাকী থাকলে- A= আর্স। B= ক্যাল্ক, ড্রসে, ফেরা, মেজের, ন্যাট্র-মি, স্ট্র্যামো।
১০.৩) বিষণ্নতা : সামান্য বিষয়ে – B= ডিজি, গ্র্যাফ। C= অ্যাগারি, ব্যারা-কা, ককুল, মেজের।
১১) সন্ধাকালে (Evening) বাড়ে- অ্যালু, অ্যাম্ব্রা, অ্যামন-ক্রু, অ্যান্টি-টা, আর্নি, বেল, ব্রায়ো, ক্যাল্ক, ক্যাপসি, কার্বো-অ্যা, কার্বো-ভে, কার্বো-সাল, কস্টি, ক্যামো, কলচি, সাইক্লে, ইউফ্রে, হেলি,হায়োস, ক্যালি-নাই, লাইকো, ম্যাগ-কা, মিনিয়ে, মার্ক, মেজের, ন্যাট্র-ফ, নাই-অ্যাসি, ফস-অ্যাসি, ফস, পিক্রি-অ্যাসি, প্ল্যাটি, প্লাম্বা, পালস, র্যানান-স্ক্লে রোমেক্স, রুটা, সিপি, সাইলি, সিনাপি-না, স্ট্যানা, স্ট্রনসি, সালফ, সাল-অ্যাসি, ভ্যালের।
১২) গোসলে (Bathing) ভীতি- A= অ্যামন-কা, অ্যান্টি-ক্রু, ক্লিমে, সোরিন, রাস, সিপি, স্পাইজে, সালফ। B= বেল, ব্রায়ো, ক্যান্হা, কার্বো-ভে, ক্যামো, লরো, মেজের, পালস, স্ট্যাফি।
১৩.১) প্রদাহ : হাড়গুলোতে – A=ক্লিমে, ফ্লু-অ্যাসি, মার্ক, মেজের, ফস-অ্যাসি, পালস, সিপি, সাইলি, স্ট্যাফি, । B=অ্যাকোন, অ্যাসাফ, অরাম-মি, বেল, ক্যাল্ক, ল্যাক্টি-অ্যাসি, লাইকো, নাই-অ্যাসি, ফস, সোরিন ।
১৩.২) প্রদাহ :অস্হিবেষ্টে- A= ফ্লু-অ্যাসি, মেজের, ফস-অ্যাসি । B=অ্যাপিস, আর্স, অ্যাসাফ, ক্যালি-আই, ম্যাঙ্গে, মার্ক, নাই-অ্যাসি, সোরিন, রুটা, সাইলি ।
১৪) ঝাঁকি দিয়ে ওঠা : পেশিগুলোতে – সাইকু, হায়োস, মেজের, সিপি, স্ট্র্যামো, সালফ, সাল-অ্যাসি, জিন্ক।
১৫.১) ব্যথা: জ্বালাকর অভ্যন্তরীকভাবে- A= অ্যাকোন, আর্স, অরাম-টি, বেল, বার্বে, ব্রায়ো, ক্যানা-ই, ক্যান্থা, কার্বো-সাল, গ্র্যাফ, ক্যালি-বাই, মার্ক, মার্ক-কর, মেজের, নাই-অ্যাসি, নাক্স-ভ, ফস, পালস, রাস, স্যাবাডি, স্যাঙ্গুই, সিকেলি, সিপি, স্পাইজে, স্পঞ্জি, সালফ।
১৫.২) ব্যথা : জ্বালাকর হাড়গুলোতে – A= মেজের। B= অ্যাসাফ, অরাম, কার্বো-ভে, ইউফর্বি, হিপার, ল্যাকে, ফস-অ্যাসি, রাস, রুটা, সিপি, সালফ।
১৫.৩) ব্যথা : সূঁচফোটানো : মাংসপেশিতে জ্বালাপোড়া- A= অ্যাসাফ, ককুল, মেজের, নাক্স-ভ, রাস, স্ট্যাফি।
১৬) লাফানো ( Twitching) – A= অ্যাগারি, অ্যামন-মি, অ্যান্টি-ক্রু, অ্যাসাফ, ক্যাক্টা, হায়োস, ইগ্নে, আই, ক্যালি-কা, মেজের, ন্যাট্র-কা, স্ট্র্যামো, জিঙ্ক।
১৭) দুর্বলতা/ ক্লান্তিঃ পক্ষাঘাতগ্রস্ত- A= ককুল, জেলস, হেলি, মেজের, মস্কাস, মিউ-অ্যাসি, ফস-এসিড, ফস, ভিরেট।

-ডা. এইচ এম আলীমুল হক, আলহক্ব হোমিও ফার্মেসী,
মুক্তিস্মরণী (চিটাগাংরোড), শিমরাইল মোড়,
সিদ্ধিরগঞ্জ, নারায়ণগঞ্জ, ঢাকা, বাংলাদেশ।
০১৯২০-৮৬৬ ৬১০

করতে পারবো।