(25) Lycopodium (লাইকোপোডিয়াম)

♣ সমনামঃ ক্লাব মস, নেকড়ের থাবা, ভেজিটেবল সালফার।
♣ মায়াজমঃ সোরিক, সাইকোটিক, টিউবারকুলার, সিফিলিটিক।
♣ সাইডঃ ডানপাশ, ওপরে ডানপাশ নিচে বামপাশ, ডানপাশ হতে বামপাশ, বামপাশ।
♣ কাতরতাঃ গরমকাতর।
♣ উপযোগিতাঃ যাদের তীক্ষ্মবুদ্ধি অথচ দেহ দুর্বল ও কৃষ্ণকায়, দেহের ওপরভাগ শুকনো অথচ নিচের দিক সামান্য শোথগ্রস্থ ; যকৃত ও ফুসফুসের রোগে ভোগে জীবনের শুরু ও শেষভাগে অর্থাৎ শিশু ও বৃদ্ধদের অসুখে উপযোগী।
♣ ক্রিয়াস্থলঃ পরিপোষণতন্ত্র, পরিপাক স্থল, খাদ্যের প্রবেশ পথ, চামড়া, মূত্রযন্ত্রগগুলো, বুক, গলা, ডিম্বাশয়, মস্তিষ্ক, ফুসফুস, শ্লৈষ্মিক ঝিল্লি, স্নায়ুমণ্ডল, জননেন্দ্রিয়, যকৃত।
♣ বৈশিষ্ট্যঃ ০১. বৃদ্ধি – বিকেল ৪টা হতে রাত ৮টা। ০২. রোগের গতি ডানদিক হতে বামদিকে যায়।
০৩. উন্মুক্ত হলে রোগের উপশম। ০৪. গরম পানীয়ে উপশম, ঠান্ডা খাবার ও ঠান্ডা পানীয়ে রোগের বৃদ্ধি। ০৫. নাকের পাতা পাখার মতো ওঠা-নামা করে।
♣ সারসংক্ষেপঃ শীর্ণতা, যকৃত ও ফুসফুসের রোগে ভোগে জীবনের শুরু ও শেষভাগে। উত্তাপের ঝলকাবোধ। অপরাহ্ন ৪টা হতে রাত ৮টা, সাধারণভাবে ঠান্ডায়, আহারের পরে, বায়ু উৎপন্ন করে এরূপ খাদ্যে, বিছানায় শুলে, ঋতুস্রাবের আগে ও সঞ্চালন আরম্ভকালে বাড়ে। মাঝরাতের পর, গরম খাদ্যে, শুলে থাকলে উপশম পরে বাড়ে, ঘামে ও মুক্ত বাতাসে কমে। উৎকন্ঠা, ভয়, কৃপণতা, হিংসুক, ধনলিপ্সা, স্নায়বিকতা, ক্রোধোন্মাত্ত, প্রলাপ, স্বপ্ন দেখে, জড়বুদ্ধি। প্রভুত্বব্যাঞ্জক বা হিংসার সাথে উন্মাদনা। তৃপ্তিসহকারে খাওয়ার পর পেটের ডান হাইপোকন্ড্রিয়াতে বা যকৃত বা লিভারে ব্যথা হয়। ডানাঙ্গে রোগাক্রমণ বা প্রথমে ডানাঙ্গে পরে বামাঙ্গে আক্রান্ত হয়। নাকের পাতা পাখার মতো ওঠা-নামা করে।
♣ অনুভূতিঃ মনে হয় যেনো গরম বল দু ‘স্তন হতে গড়িয়ে পিঠের দিকে যাচ্ছে, গড়াতে গড়াতে পায়ের মাঝ দিয়ে গোড়ালিতে পড়ছে ; পর্যায়ক্রমে বরফের বলেরও এরূপ অনুভূতি।
♣ ক্রম ও সহচর লক্ষণঃ ১) হাঁপানির ক্ষেত্রে নাকের পাতাগুলো পাখার মতো নড়াচড়া করে। ২) প্রস্রাব করার সময় পেটে হাত দিয়ে চাপ দিতে হয়। ৩) শীর্ণ বালক শিশুদের শুকনো কাশি হয়। ৪) উদরি বা পেটের শোথ হতে সার্বদৈহিক দূর্বলতা হয়।
< বৃদ্ধিঃ অপরাহ্ন ৪টা হতে রাত ৮টা, সঙ্গমকালে, সাধারণভাবে ঠান্ডায়, আহারের পরে, পেট ভরে আহারে, সীম ও বাঁধা কপিতে, ঠান্ডা খাদ্যে, বায়ু উৎপন্ন করে এরূপ খাদ্যে, পিঁয়াজে, বিছানায় শুলে, একপাশে চেপে শুলে, ঋতুস্রাবের আগে, সঞ্চালন আরম্ভকালে, চাপপ্রয়োগে, জাগরণে, বসাবস্হায়, স্পর্শে, মুক্তবাতাসে, গরম ঘরে, আবরণে।
> হ্রাসঃ মাঝরাতের পর, খোলা বাতাসে, পোষাক ঢিলা করে দিলে, ঠান্ডা লাগালে, আহারকালে, গরম খাদ্যে, শুয়ে থাকলে উপশম পরে বাড়ে, ঘামে, ঘোড়ায় চড়ায়, উদ্গারে, প্রস্রাব করার পর, বিছনার গরমে।
♣ কারণঃ ভয়, রাগ, অপমান অথবা পুঞ্জি ভূত অসন্তোষ হয়ে বিরক্তি ভাব, উৎকন্ঠা, জ্বর, হস্তমৈথুন, তামাক বা সাদা পাতা বা জর্দা চিবানো, মদ, কোনো ভারী জিনিস তোলা, গাড়িতে চড়া, অতিরিক্ত যৌনক্রিয়া।
♣ ইচ্ছাঃ খোলা বাতাস, মিষ্টি, ঝিনুক, মদ, গরম পানীয়ে।
♣ অনিচ্ছাঃ কফি, তামাক, রুটি, মাংস, ঝোল, সিদ্ধ গরম খাবার।
♣ শত্রুভাবাপন্নঃ কফি, নাক্স-ভ, জিঙ্ক।
♣ ক্রিয়ানাশকঃ অ্যাকোন, ক্যাম্ফ, কস্টি, ক্যামো, গ্র্যাফ, পালস, ওপি, কফি, নাক্স-ভ।
♣ এটি ক্রিয়ানাশকঃ চায়না, মার্ক, ক্লোরিন।
♣ সতর্কীকরণঃ এটি একটি সুগভীর ও দীর্ঘক্রিয় ওষুধ, উন্নতি শুরু হলে কখনও পূনঃপ্রয়োগ করবে না। —– ডা. এলেন।

= উপরোক্ত লক্ষণ সাদৃশ্যে যে কোন রোগেই আমরা লাইকো প্রয়োগ করতে পারবো।

One Comment