Cimicifuga/Actia R (সিমিসিফিউগা/একটিয়া আর)

(২)Cimicifuga (সিমিসিফিউগা)
Actaea Race (একটিয়া রেসি)
# নিজস্বকথাঃ
১। ঋতুস্রাবের সঙ্গে ব্যথা বৃদ্ধি পায়।
২। পর্যায়ক্রমে শারীরিক ও মানসিক লক্ষণ।
৩। ডিম্বকোষের বা জরায়ুর দোষে শ্বাসকষ্ট বা হৃদস্পন্দন।
৪। যারা আঙ্গুলের কাজ করে তাদের পিঠে ব্যথা।
# মূলকথাঃ
১। মন বিমর্ষ, মৃত্যুভয়, অস্থিরতা, সন্দেহপূর্ণ।
২। বাতরোগ উপশম হলে মানসিক লক্ষণ সমূহ বৃদ্ধি হয়।
৩। মনে হয় মাথার চাঁদিটা উড়ে যাবে।
৪। ঘাড়ে ব্যথা, ঘাড় আড়ষ্ট হয়ে মাথাটি পেছন দিকে খিঁচে ধরে।
৫। জরায়ুর নানবিধ অসুস্থতায় তলপেটের একপাশ হতে অপর পাশে তীর বিঁধার মত বেদনা, জরায়ু প্রদেশে চাপ দিলে অত্যন্ত ব্যথা।
৬। ঋতু¯্রাবের সময় প্রচুর পরিমাণে রক্ত¯্রাব, রজঃনিবৃত্তি কালে বামদিকের স্তনের নি¤œদেশে বেদনা।

চরিত্রগত লক্ষণ বা নির্দেশক লক্ষণ-
১। ঋতুস্রাবের সহিত ব্যথা বৃদ্ধি পায় (যত স্রাব তত ব্যথা)
২। পর্যায়μমে শারীরিক ও মানসিক লক্ষণের পরিবর্তন
৩। শীতকাতর ও নিদ্রাহীনতা
৪। ডিম্বকোষের বা জরায়ুর দোষে শ্বাসকষ্ট বা হৃদ স্পন্দন
৫। বিষনড়ব, শঙ্কিত, সন্ধিগ্ধ, নিরন্তর ক্ষোভপূর্ণ, অবসাদযুক্ত, অস্থিরতা ও বাচালতা (এক বিষয় হইতে অন্য বিষয়ে)। মনে করে একটা ঘন কালো বর্ণের মেঘ তাহাকে আবৃত করিয়াছে, সমস্তই অন্ধকার; আবার সেইসংগেই তা মাথার উপর সীসা চাপানোর মত ভারী বোধ হয়।
৬। রোগীনি মোটা সোটা ও বাতগ্রস্তা ।
৭। মাথা ব্যতীত ঠান্ডা সহ্য করিতে পারে না। শির:পীড়া খোলা বাতাসে ও ঠান্ডায় উপশমিত হয়।
৮। বিদ্যুৎ গতির মত বেদনা
৯। মনে করে একটা ঘন কালো বর্ণের মেঘ তাহাকে আবৃত করিয়াছে, সমস্তই অন্ধকার; আবার সেই সংগেই
তা মাথার উপর সীসা চাপানোর মত ভারী বোধ হয়।
১০। ঋতুকালে মানসিক লক্ষণের বিবৃদ্ধি, হিষ্টিরিয়া ও উন্মাদ ভাব, বাত। ডিম্বকোষ প্রদেশে যন্ত্রণা; উরুদেশের সামনের দিকে গা বয়ে যন্ত্রণা তীরের গতির মতে ঊঠে এবং নামে। ঋতুকালের কিছু আগে ব্যথা। ঋতুস্রাব পরিমাণে প্রচুর, ঘোরাল, চাপবাধা, দূর্গন্ধময়, সেইসাথে পিঠে ব্যথা এবং দূর্বল চিত্ত; সব সময় ঋতুস্রাব অনিয়মিত। ¯্রাব যত বেশী হতে থাকে, যন্ত্রণাও তত বেশী হতে থাকে।
১১। স্পর্শে, দেহ সঞ্চালনে, শীতল বায়ুতে, উষ্ণ গৃহে, রাত্রিতে, প্রাতে ও সন্ধ্যায়, ঋতুস্রাব কালে, কিছু চাপা পড়ে, প্রসব ব্যথার সময়, ভাবাবেগে, এলকোহলে, রাত্রে, ভেজা ঠান্ডায়, ঝাপটা হাওয়ায়- বৃদ্ধি
১২। বিশ্রামে, নির্মল বায়ুতে, উত্তাপে ও আহারাহ্নে খোলা বাতাসে (মাথা), রাত্রে (দাঁত) গরম আচ্ছাদনে, চাপে, কিছু আঁকড়ে ধরলে – উপশম
১৩। সড়বায়বিক ও হিষ্টিরিয়া প্রবণ
১৪। দেহের বাম দিকে অধিক μিয়া প্রকাশ করে
১৫। শরীরের যে পার্শ্ব চাপিয়া শয়ন করে, সেই পার্শ্বের মাংস পেশী এত নাচিয়া উঠিতে থাকে যে, শুইয়া থাকা অসম্ভব হইয়া পড়ে
১৬। পেট ব্যথা চেপে ধরলে উপশম হয়
১৭। জিহŸা বাহির হইয়া থাকে ও কাঁপে।
১৮। পর্যায়μমে উদরাময় ও কোষ্ঠকাঠিন্য হয়। পর্যায়μমে উদরাময় ও শারীরিক উপসর্গ। পেটে ব্যথা, ক্ষতমত ব্যথা থেঁৎলানোর মত বেদনা।
১৯। শিরঃপীড়া ভিনড়ব অন্য সমস্ত রোগই ঠান্ডা ও আর্দ্র হাওয়ায় খারাপ হয়
২০। গর্ভের শেষ ২/১ মাসে প্রয়োগে প্রসব বেদনার যন্ত্রনা হ্রাস
২১। সূতিকা উন্মাদ, মনে করে সে পাগল হইয়াছে; নিজেকে বিনষ্ট করার চেষ্টা
২২। প্রসব কালে শীত ও কাঁপনি, ব্যথা μমাগত ঘুরিয়া বেড়াইতে থাকে, জরায়ুর মুখ খোলে না
২৩। চক্ষুর সড়বায়ু শূল বেদনা, অক্ষি খোলকের মধ্যে তীব্র বেদনা হয়-আর সে বেদনা কপালে, মাথার মধ্যস্থলে। ক্রমশ ঘাড়ে আসে
২৪। গর্ভাবস্থায় বমি, অনিদ্রা, পালট বেদনা, তৃতীয় মাসে গর্ভস্রাব
২৫। ঘাড়ে, মেরুদন্ডে, পিঠে, কোমরে বাতের মত বেদনা
২৬। বেতো স্ত্রী লোকের বাদক বেদনা
২৭। জরায়ু কিংবা ডিম্বকোষের প্রত্যাবৃত্ত μিয়ার নিমিত্ত হৃদপীড়া, হঠাৎ হৃৎপিন্ডের পীড়া যেন বন্ধ হইয়া
যায়, তাতে শ^াস রোধের মত হয়, একটু নড়াচড়া করিলেই বুক ধড়ফড় করে, বাম স্তন তলে তীক্ষè বেদনা
২৮। পিত্ত প্রধান।
২৯। প্রায়শ: পেশীসমূহে ক্ষতের মত বেদনা ও সর্বাঙ্গে থেৎলানোর মত অনুভ‚তি ও তৎসহ আড়ষ্টতা ও
উৎক্ষেপণ থাকে। শরীরের কোন অংশে চাপ দিলে ঐ অংশের পেশীগুলির উৎক্ষেপ হতে থাকে।
৩০। বাত উপশম হওয়ার পর মানসিক বিকৃতি -একটি বিশেষ লক্ষণ।
৩১। জরায়ু স্থানে বেদনা ,উহা একপাশ থেকে অপর পাশে ধাবিত হয় । বেদনাটি ঠেলে বের হওয়ার মত ও প্রচাপনবৎ।
৩২। এনজাইনা পেক্টোরিস, গর্ভাবস্থায় বমি, ঋতুস্রাব, আক্ষেপ, ৩য় মাসে গর্ভস্রাব, মেনিনজাইটিস, স্ত্রী
ব্যাধি, প্রসব বেদনা,বাত, কাশি, সড়বায়ু শূল, চক্ষুর পীড়া, অনিদ্রা, সূতিকা উন্মাদ।
৩৩। বর্জনীয় খাবার : কড়া মদ
৩৪। ঔষধের μিয়াকাল ও সম্পর্ক: μি= একোন, ব্যাপ্টি,মদ, ক্যাম্ফর, সিকেলি,

সংকলক———–
-ডা. এইচ এম আলীমুল হক,
আলহক্ব হোমিও ফার্মেসী, মুক্তিস্মরণী (চিটাগাংরোড),
সিদ্ধিরগঞ্জ, নারায়ণগঞ্জ, ঢাকা, বাংলাদেশ।
০১৯২০-৮৬৬ ৬১০(সকাল ১০টা থেকে রাত ৯টা,
নামাজের সময় বিরতী)