Carbo Veg (কার্বো-ভেজ)

DHMS (2nd year).
♣ সমনামঃ ভেজিট্যাবিল চারকোল, কাষ্ট অঙ্গার, শব্জী অঙ্গার।
♣ মায়াজমঃ সোরিক, সাইকোটিক, টিউবারকুলার, সিফিলিটিস।
♣ সাইডঃ ডানপাশ, বামপাশ , ওপরে ডানপাশ নিচে বামপাশ।
♣ কাতরতাঃ গরমকাতর।
♣ উপযোগিতাঃ রক্ত বিশ্লিষ্টকরণ ও রক্তে অক্সিজেন ক্রিয়ার অসম্পপূর্ণতা এ ওষুধটির প্রধান কাজ। কার্বোর রোগীর কর্মবিমুখ, মোটা অলস এবং তার প্রতিটি রোগী ক্রনিক আকার ধারণ করে। রক্তধমনিগুলোর মা্ঝে আবদ্ধ হয়ে পড়ে; ফলে নীলবর্ণ প্রাপ্তি, শীতলতা এবং কালশিরা পড়া লক্ষণ উপস্হিত হয়। উত্তেজনা প্রবণতা ও প্রতিক্রিয়াহীনতার অভাব। দেহ নীলবর্ণ এবং ভেতরে ও বাইরে ঠাণ্ডাবোধসহ জ্বালা।
♣ ক্রিয়াস্থলঃ শ্লৈষ্মিক ঝিল্লিগুলো, পরিপাকন্ত্র, পাকস্হলী, হৃদপিণ্ড, রক্ত সঞ্চালন, শিরাগুলো রক্ত অক্সিপট।
♣ ফিজিওলজিক্যাল কাজঃ (Physsiological action)ঃ কার্বো-ভেজ রক্তের ওপর গভীর কাজ দেখতে পাএয়া যায়। এটি রক্তের উপাদানগুলোর পরিবর্তন ঘটায়। কোনো রোগে রক্ত দূষিত অথবা রক্ত বিষাক্ত হলেও কার্বো-ভেজ তাতে নির্বাচিত হয় এবং উত্তম কাজে করে এছাড়া কার্বো-ভেজর কাজ শ্লৈষ্মিক ঝিল্লি এবং লিম্ফপাটিক গ্রন্হির ওপরও যথেষ্ট প্রকাশ করে।
♣ সারসংক্ষেপঃ উত্তেজনা প্রবণতা ও প্রতিক্রিয়াহীনতার অভাব। মোটা অলস। স্বাস্হ্যহানির অতীত কাহিনী। হিমাঙ্গাবস্হায় ঘাম ও পূর্ণতাবোধ। প্রাতে, পূর্বাহ্নে, সন্ধাকালে, আহারকালে ও পরে, মাখনে, মাসলাদার খাদ্যে, ঘুমের আগে, শুরুতে ও পরে বাড়ে। নিঃসরণে, ঢেঁকুর ওঠলে, পাখার বাতাসে, পোশাক ঢিলা করে দিলে ও গরম খাদ্যে কমে। অশান্তি ও উৎকণ্ঠা। ঐদাসীনতা মনোসংযোগ : কষ্টকর, মনের বিশৃঙ্খল অবস্হা। ভূতের ভয়। পেটের মাঝে অতিরিক্ত বায়ুসঞ্চার ও উদগারে উপশম। জ্বালা ও রক্তস্রাব। হাত পায়ের শীতলতার কারণে ঘুম হতে জেগে ওঠে। অজীর্ণতা হতে মূর্ছাকল্পতা বা অজ্ঞান হয়ে যাবার প্রবণতা।
♣ অনুভূতিঃ
১) উত্তপ্ত হওয়া হতে মাথায় ঠাণ্ডা বোধ, শীতবোধ বা মাথায় সংকোচন বোধ।
২) টুপির চাপে মাথায় সংকোচন বোধ।
♣ ক্রম ও সহচর লক্ষণঃ
১) অতিরিক্ত পরিমাণে খাওয়ার পর শ্বাস-প্রশ্বাস কষ্টকর হয়।
২) হাত পায়েন শীতলতার কারণে ঘুম হতে জেগে ওঠে।
♣ < বৃদ্ধিঃ প্রাতে, পূর্বাহ্নে, সন্ধাকালে, রক্তক্ষরণ, জৈবপদার্থের অপচয়, ঠাণ্ডায় পরিশ্রমে। ভারোত্তোলনে, অত্যধিক মসলাযুক্ত কাদ্যে, খোলাবাতাসে হাঁটলে, কাপড়ের চাপে, সন্ধ্যা ও রাতে ঠাণ্ডা বাতাসে, অবরুদ্ধে, মাথায় বাতাস লাগলে, বিছানা থেকেে ওঠার পর, গরম তাপমাত্রাযুক্ত আবহাওয়ায়, আবদ্ধঘরে, ওপরদিকে ওঠতে, অবস্হান পরিবর্তনে, উত্তাপে, ঠাণ্ডা হতে গরম পড়লে, সাধারণভাবে ঠাণ্ডায়, ঠাণ্ডা লাগালে পরে, শুষ্ক আবহাওয়ায়, আহারকালে ও পরে, খাদ্য: সীম বা মটরে, বাঁধা কপিতে, কফিপানে, ঠাণ্ডা খাদ্যে, খোশাযুক্ত মাছে, পঁচা মাছে, বায়ু উৎপন্ন করে এরূপ খাদ্যে, বরফ জমানো খাদ্যে, ফলে, মাখনে, গরম খাদ্যে, লেমনেড খেলে, দুধে, শুকরের মাংসে মসলাদার খাদ্যে, সালাদে, লবণে, গরম খাদ্যে, মদপানে, মাংস ও পচামাংস এবং চর্বিযুক্ত খাদ্য খেলে, ঋতুস্রাবের আগে, সঞ্চালনে, সঞ্চালন আরম্ভকালে, সঞ্চালন আরম্ভের পরে, ঘুমের আগে, শুরুতে ও পর, ঘামের পর, ঘাম চাপা পড়ে, চাপপ্রয়োগে।
♣ > হ্রাসঃ নিঃসরণে, শীতল বাতাসে, উপবেসনে, ঢেঁকুর ওঠলে, পাখার বাতাসে, খোলা বাতাসে, অবস্হান পরিবর্তনে, পোশাক ঢিলা করে দিলে, গরম খাদ্যে, শুয়ে থাকলে, শুয়ে থাকার পরে, ব্যথাযুক্ত পাশে শুলে, নিচে বসতে গেলে, ঘুমের সময়ে, পা দুটো উঁচু করে রাখলে।
♣ কারণঃ জৈব তরল পদার্থের ক্ষয়, হামের পরবর্তী অবস্হা, পারদের অপব্যহার, ভারি বোঝা তোলা, পেশি ও কন্ডুরাগুলোতে চাপ লাগার কুফল, রক্তস্রাব, হস্হমৈথুন হতে পীড়া, অতিরিক্ত যৌনক্রিয়ার পর, আঘাত, লোহার অপব্যবহার জনিত অবস্হা, কুইনাইন অপপ্রয়োগ, সূর্যালোকে থাকা, রক্তে জীবানুসংক্রমণ / রক্তদোষণ। স্করবিউটাস, স্কার্ভি/ ভিটামিন সি- এর অভাবজনিত রোগ। লবণ, লবণাক্ত মাছ-মাংস, মদ পঁচা ডিম, মাছ, চর্বি, পারদ, মাখন, পাখির মাংস, বরফ ইত্যাদি আহারে। অতিরিক্ত শ্রম। আবহাওয়ায় পরিবর্তনে, আগুনের গরম হাওয়ায় নিঃশ্বাস নিলে, শরীর অতিরিক্ত গরম হলে।
♣ ইচ্ছাঃ খোলা বাতাসের আকাঙ্ক্ষা, কফি, অম্ল, মদ, লবাণাক্ত ও গরম পানীয়।
♣ অনিচ্ছাঃ দুধ, মাংস, চর্বিযুক্ত খাদ্র ও মাখন।
♣ ক্রিয়ানাশকঃ আর্স, ক্যাম্ফ, কফি, ল্যাকে, অ্যাম্ব্রা, নেট্র-মি, স্পিরি-নাইট্রি-ডাল, ফেরা-মেট।
♣ এটি ক্রিয়ানাশকঃ পঁচা গন্ধযুক্ত মাছ অথবা মাংসের কুফল, পঁচা চর্বি, লবণ অথবা লবণে জড়িত মাংস; চায়না, ল্যাকে, মার্ক।
♣ শত্রুভাবাপন্নঃ কার্বো-অ্যানি, কিয়ো।
♣ প্রয়োগঃ প্রবল অম্লত্ব এবং পানি উদ্গার, নির্দোষ খাদ্যও অসহ্য বিশেষত চর্বিযুক্ত খাদ্য। এ ক্ষেত্রে পালসেটিলা বিফল হলে কার্বো-ভে সফল হয়। ডা.ই.বি. ন্যাস।
= উপরোক্ত লক্ষণ সাদৃশ্যে যে কোন রোগেই আমরা “কার্বো-ভেজ ” প্রয়োগ করতে পারবো।
লেখক-Dr.Moin Uddin
সূত্র-অনলাইন কালেকশন
ডা. এইচ এম আলীমুল হক, আলহক্ব হোমিও ফার্মেসী, মুক্তিস্মরণী, চিটাগাংরোড, শিমরাইল মোড়, সিদ্ধিরগঞ্জ, নারায়ণগঞ্জ, ঢাকা, বাংলাদেশ। ০১৯২০-৮৬৬ ৬১০