(12) Cantharis (ক্যান্থারিস)

♣ সমনামঃ ক্যান্হারিস ভেরিকেটরিস, ব্লিস্টার ফ্লাই,স্পেনিস ফ্লাই।
♣ মায়াজমঃ সোরিক সাইকোটিক।
♣ সাইডঃ ডানপাশ, ডানপাশ হতে বামপাশ।
♣ কাতরতাঃ শীতকাতর।
♣ উপযোগিতাঃ অসহিষ্ণুতা, স্পর্শকাতরতা, দেহের সকল অংশ অংশ অনুভূতি সম্পন্ন। তরুন রোগে, যাদের বিভিন্ন দ্বার দিয়ে রক্তস্রাবের প্রবণতা, যে কোনো রোগের সাথে জ্বালা ও প্রদাহ, জ্বালার প্রকৃতি অগ্নিদগ্ধবৎ।
♣ ক্রিয়াস্থলঃ পুংজনন তন্ত্র, মূত্রযন্ত্র, শ্লৈষ্মিক ঝিল্লি, রক্ত, অন্ত্র, স্নায়ু, চর্ম, দক্ষিণ দিক, নিম্ন উদর।
♣ ফিজিওলজিক্যাল কাজঃ ক্যান্হারিসে ফিজিওলজিক্যাল কাজে দেখতে পাওয়া যায় (irritating property) অর্থাৎ উপদাহগুণই হচ্ছে এর সর্বপ্রধান লক্ষণ এবং এটি এ ওষুধের প্রথম হতে শেষ পর্যন্ত বর্তমান রয়েছে। প্রদাহের যন্ত্রণা অত্যন্ত ভীষণ আগুনের মতো জ্বলনসদৃশ। সর্বপ্রথম মূত্রযন্ত্র আক্রান্ত এবং জ্বালা- যন্ত্রণা ও টাটানি উৎপন্ন করে রোগীকে বার বার প্রস্রাব করতে হয় এবং প্রস্রাব খোলসাভাবে পরিষ্কার হয় না।
♣ সারসংক্ষেপঃ সংবেদনশীলতা ও রক্তস্রাবপ্রবণতা, জ্বালা, আগুনের মতো জ্বালা ও প্রদাহ। বিকেল ৩ টা হতে রাত ৩ টা পর্যন্ত শীতবোধ হয়। প্রস্রাবের আগে, সময় এবং পরে, পানির শব্দে, ঠাণ্ডা লাগলে, কফিপানে ও শীতল পানীয়ে বাড়ে। মর্দনে, গরমে, ঘামের পরে ও শুয়ে থাকলে কমে। প্রচণ্ড ক্রোধ, সংগমেচ্ছা বর্ধিত, উদ্বেগপূর্ণ অস্হিরতা, প্রলাপ ও ভ্রান্ত বিশ্বাস মূত্রকৃচ্ছ্রতার সাথে অসহ্য বেগ। পর্যাবৃত্তি: সপ্তম দিনে। আকস্মিকতা ও ভীষণতা।
♣ অনুভূতিঃ (১) বিকেল ৩টা হতে রাত ৩টা পর্যন্ত শীতবোধ হয়।
(২) পোকা হাঁটার মতো অনুভূতি: অভ্যন্তরীণ ও গ্রন্হিগুলোতে ।
♣ ক্রম ও সহচর লক্ষণঃ (১) আমাশয়ের সাথে জিবের ছাল ওঠে যাওয়া অবস্হা। (২) কেটে ফেলার মতো যন্ত্রণা মূত্রথলীর ঘাড় হতে মূত্রনালি পর্যন্ত বিস্তৃত বা প্রসারিত হয়। (৩) প্রস্রাব ফোটা ফোটা করে ঝরে এবং গরম পানিতে ঝলসানোর মতো যন্ত্রণা হয় ।
< বৃদ্ধিঃ প্রাতে, পূর্বাহ্নে, রাতে, প্রস্রাবের আগে, সময়ে এবং পরে, ঠাণ্ডা পানীয়ে, উজ্জ্বল বস্তু ও পানিপূর্ণ স্হান দেখলে, পানির শব্দে, আবেদন, প্রবাহমান পানি দর্শনে, কেউ তার দিকে এগিয়ে আসলে, গোসলে, সঙ্গমকালে, ঠাণ্ডা লাগালে, হাত বিছানার বাইরে রেখে, নিচের দিকে নামলে, খাদ্য: কফিপানে, শীতল পানীয়ে, সঞ্চলনে, চাপপ্রয়োগে প্রকোপ, ঘর্ষণে প্রকোপ, দাঁড়লে, স্পর্শে প্রকোপ।
♣ উপশমঃ টিপে দিলে, গরমে, পিঠে চেপে শুলে, আক্রান্ত অঙ্গে হাত রাখলে, শুয়ে থাকলে, শুয়ে থাকার পরে, চিৎ হয়ে শুলে, বিছানায় শুলে, একপাশে চেপে শুলে, ঘামের পরে, চাপে, মর্দনে, উনুনের গরমে, মদে।
♣ কারণঃ আগুনে পোড়া। গনোরিয়া।
♣ ইচ্ছাঃ মাংস।
♣ শত্রুভাবাপন্নঃ কফিয়া।
♣ ক্রিয়ানাশকঃ অ্যাকোন, পালসটিলা, রিউম, অ্যাপিস, ক্যাম্ফ, লরোসি, ক্যালি-নাই।
♣ প্রয়োগঃ এটি একটি অদ্ভূত ঘটনা, যদিও এটি অধিকংশ চিকিৎসকই জানেন, যদি কোনো ক্ষেত্রে বারবার মূত্রত্যাগ বা প্রস্রাবের সাথে জ্বালা ও কর্তনমতো যন্ত্রণা থাকে বা বারবার প্রস্রাব না হয়েও যদি মূত্রস্রাবে কর্তনমতো বা জ্বালাকর ব্যথা থাকে তবে অন্যান্য রোগেও এমনটি মস্তিষ্ক এ ফুসফুসের প্রদাহেও সর্বদাই ক্যান্হারিস ব্যবস্হেয়- এইচ.এন. গ্যারেন্সি ।

= উপরোক্ত লক্ষণ সাদৃশ্যে যে কোন রোগেই আমরা ক্যান্হারিস প্রয়োগ করতে পারবো।

22 Comments