হোমিওপ্যাথিক ঔষধের সংক্ষপ্তি লক্ষন সমূহঃ ১ম পর্যায় (৫০টি)

১. এসিড ফসঃ (১) অবসাদ বা অবসন্নতা। (২) দুধের মত সাদা প্রস্রাব বা ঘনঘন প্রসাব। (৩) উদরাময়ে উপশম এবং মলত্যাগকালে প্রচুর বায়ুনিঃসরন। (৪) উদাসভাব বা তন্দ্রাচ্ছন্নভাব।

২. এগনাস কাস্টঃ (১) স্নায়ুদৌর্বল্য অকালবার্ধক্য (২) প্রষ্টেটগ্রন্থি রস নির্গমন (৩) লিউকোরিয়া ও জরায়ুর শিথিলতা। (৪) বাতকমের্র গণ্ধ ঠিক মূত্রের গন্ধের মত।

৩. একোনাইট ন্যাপ (১) আকস্মকিতা ও ভীষনতা। (২) অস্থরিতা ও মৃত্যুভয়। (৩) জ্বালা ও পপিাসা। (৪) প্রচন্ড শীত/গরমরে প্রকোপ।

৪. এসিড নাইট্রিকঃ (১) স্রাবে দূর্গন্ধ, বিশেষত: প্রস্রাবে। (২) শ্লৈষ্মিক ঝিলি­ ও চর্মের সন্ধি স্থলে ক্ষত ফেটে যাওয়া। (৩) কাঁটা ফোটার মত ব্যাথা। (৪) আরোহনে উপশম, দুধে বৃদ্ধি।

. এলিয়াম সেপাঃ (১) নাক থকেে ক্ষতকর স্রাব (শ্লষ্মো)। (২) পটেে বায়ু সঞ্চার। (৩) জুতার ঘোসায় ফোস্কা, অস্ত্রোপচাররে পর স্নায়ুশূল (এসডি ফস)। (৪) নাকে পলপিাস।

৬. এপিস মেলঃ (১) মুত্রকষ্ট ও মুত্র স্বল্পতা। (২) জ্বালা ও ফোলা। (৩) গরমকাতর ও র্স্পশকাতর। (৪) হুল ফোটানাে ব্যাথা।

৭. এরালয়িা আরঃ (১) শুইলইে শ্বাস-প্রশ্বাসে কষ্ট, উপুড় হইয়া বসয়িা থাক। (২) নশ্বিাস টানয়িা লাইবার সময় অত্যন্ত কষ্ট, ফলেবিার সময় সহজ। (৩) নিদ্রায় ঘাম, প্রথম নদ্রিার পর হঠাৎ নদ্রিাভঙ্গ হয়ে কাশি, শুইলে কাশি বৃদ্ধি। (৪) শ্বতেপ্রদর- স্রাব চটচটে ও হাজাকর।

৮. আর্নিকা মন্টঃ (১) বদেনা,আঘাত ও রোগজনতি। (২) অস্থরিতা ও র্স্পশকাতরতা। (৩) বছিানা শক্ত মনে হয় কন্তি অন্যান্য কষ্ট ম্বন্ধে বলে সে ভাল আছ।ে (৪) আতঙ্ক ও সজ্ঞানে প্রলাপ।

৯. আর্সেনিক এল্বঃ (১) অস্থরিতা,মৃত্যুভয় ও নদিারুণ র্দূবলতা। (২) মধ্য দবিা বা মধ্য রাতে বৃদ্ধ।ি (৩) পপিাসা প্রবল কন্তিু ক্ষনে ক্ষনে অল্প পানি পান,পানি পান মাত্রই বম।ি (৪) জ্বালা ও র্দূগন্ধ।

১০. ব্যাসিলিনামঃ (১) বংশগত ক্ষয়দোষ এবং উপযুক্ত ঔষধরে র্ব্যথতা। (২) রোগ ও রোগীর পরর্বিতনীলতা। (৩) অল্পে ঠাণ্ডা লাগা এবং গ্রন্থরি ববিৃদ্ধ।ি (৪) র্দুবলতা ও বাচালতা। ১১. বেলেডোনাঃ (১) আরক্তমিকা ও উক্তাপ। (২) র্স্পশকাতরতা জ্বালা। (৩) আকস্মকিতা ও ভীষনতা। (৪) ব্যথা হঠাৎ আস,ে হঠাৎ যায়।

১২. ব্রাইয়োনিয়া (১) নড়াচড়ায় বৃদ্ধ,ি চুপ থাকলিে উপশম। (২) শ্লষ্মৈকি ঝল্লিরি শুষ্কতা। (৩) আক্রান্ত বা বদেনার স্থান চপেে ধরলে উপশম। (৪) ঠান্ডায় বৃদ্ধ,ি গরমে উপশম। (৫) ক্রুদ্ধ ভাব বা ক্রুদ্ধ হবার কারনে অসুস্থতা।

১৩. ক্যালকেরিয়া কার্বঃ (১) শ্লষ্মো প্রবনতা,দহেরে স্থুলতা ও শথিলিতা। (২) ভ্রান্ত ধারনা ও ভীরুতা। (৩) অল্পতইে ঘাম,মাথার ঘামে বালশি ভজিে যায়। (৪) দুধ অসহ্য, ডমি খাবার প্রবল ইচ্ছা।

১৪ . কার্সিনোসিনঃ (১) আত্মহত্যার ইচ্ছা, ভয়, খিটখিটে-বদরাগী, খুঁতখুঁতে স্বভাব। (২) ক্যান্সার, ক্যান্সারের পূর্বাবস্থায় অপুষ্টি সহ দূরারোগ্য যে কোন অসুস্থাবস্থা। (৩) র্দুগন্ধস্রাব, রক্তস্রাব, যন্ত্রণা। (৪) অনিদ্রার ইতিহাস, পেটে অতিরিক্ত বায়ু সঞ্চয় ।

১৫. কার্বভেজঃ (১) সাস্থ্যহানরি অতীত কাহনিী। (২) ঠান্ডা অবস্থায় ঘাম ও বাতাসরে জন্য ব্যাকুলতা। (৩) পটেে গ্যাস ও উদগারে উপশম। (৪) জ্বালা ও রক্তস্রাব।

১৬. কস্টিকামঃ (১) একাঙ্গীন পক্ষাঘাত বশিষেতঃ ডান অংগরে বাত বা পক্ষাঘাত। (২) আশঙ্কা ও শীতকাতরতা। (৩) নদ্রিাকালে অস্থরিতা। (৪) না দাঁড়াইলে মলত্যাগে অসুবধিা।

১৭. চায়না অফঃ (১) অতরিক্তি ভদে, স্তন্যদান, র্বীযক্ষয় বা রক্তক্ষয়জনতি অসুস্থতা। (২) শোথ ও পটেফাঁপা। (৩) নয়িমতি/নর্দিষ্টি সময়ে রোগাক্রমন। (৪) রক্তস্রাব প্রবনতা ও রক্তস্রাবরে সহতি আক্ষপে।

১৮. সিমিসিফিউগা/অ্যাকটিয়া আর (১) ঋতুস্রাবের সাথে ব্যথা। (২) পর্যায়ক্রমে শারীরিক ও মানসিক লক্ষণ। (৩) জরায়ুর দোষে শ্বাসকষ্ট, প্রসবকালীন পীড়া। (৪) সেলাই বা টাইপিং কাজ করে ঘাড়ে পিঠে ব্যথা, ব্যথা ঠান্ডায় ও সঞ্চালনে বৃদ্ধি।

১৯. গ্রাফাইটিসঃ (১) স্থুলতা ও কোষ্ঠবদ্ধতা। (২) ফাটা র্চম ও চটচটে রস। (৩) শঙ্কা ও সর্তকতা। (৪) মাছ, গোষত, সংগীত ও সংগমে অনচ্ছিা।

২০. হিপার সালফ (১) র্স্পশকাতরতা ও শীর্তাততা। (২) ক্ষপ্রিতা ও হঠকারতিা। (৩) টক,ঝাল প্রভূতি উপখাদ্য খাবার ইচ্ছা। (৪) কাঁটা ফোটার মত ব্যাথা।

২১. ল্যাকেসিসঃ (১) নদ্রিায় বৃদ্ধ।ি (২) র্ঈষা, র্স্পশকাতরতা ও বাচালতা। (৩) বাম অঙ্গ রোগাক্রমন বা প্রথমে বাম পরে ডান অঙ্গ।ে (৪) নর্গিমনে নবিৃত্ত।ি

২২. লিডাম পালঃ (১) ঠান্ডা পানতিে উপশম। (২) নচিরে দকিে রোগাক্রমন বা প্রথমে নচিরে দকিে পরে উপররে দকি।ে (৩) শোথ। (৪) স্নায়ু কন্দ্রেে আঘাত।

২৩. লাইকোপডয়িামঃ (১) অপরাহ্ন ৪টা থকেে রাত ৮টা র্পযন্ত বৃদ্ধ।ি (২) ডান অঙ্গে রোগাক্রমন বা প্রথমে ডান পরে বাম অঙ্গে রোগাক্রমন। (৩) গরম খাইবার ইচ্ছা ও বায়ুর প্রকোপ। (৪) কৃপনতা, ভীরুতা ও ন:িসঙ্গ প্রয়িতা

২৪. মডোরিনামঃ (১) বংশগত প্রমহেদোষ ও উপযুক্ত ঔষধরে র্ব্যথতা। (২) জ্বালা,ব্যাথা,র্স্পশকাতরতা। (৩) ব্যাস্ততা ও ক্রন্দনশীলতা। (৪) স্নায়বকি র্দূবলতা, স্মৃতশিক্তরি র্দূবলতা ও মৃত্যুভয়।

২৫. মার্কসলঃ (১) রাত্রে বৃদ্ধ,ি শয্যার উত্তাপে বৃদ্ধ,ি ঘামরে বৃদ্ধ।ি (২) অতরিক্তি ঘাম, অতরিক্তি লালা, অতরিক্তি পপিাসা। (৩) র্দূগন্ধ ও ডান পাশ চপেে শুইতে অসুবধিা। (৪) জহিবা পুরু ও দাঁতরে ছাপ যুক্ত।

২৬. নাক্সভমঃ (১) অতরিক্তি মানসকি পরশ্রিম বা অতরিক্তি ইন্দ্রয়িসবো কংিবা অতরিক্তি রাত্রি জাগরনজনতি অসুস্থতা। (২) বার বার মলত্যাগরে র্ব্যাথ প্রয়াস। (৩) জদি বা মনরে দৃঢ়তা, র্ঈষা ও হঠকারতিা। (৪) শীতকাতরতা,র্স্পশকাতরতা ও পরস্কিার পরচ্ছিন্নতা।

২৭. ফাইটোলাক্কাঃ (১) স্তন ও স্তন্য। (২) র্স্পশকাতরতা ও অস্তরিতা। (৩) দাতে দাঁত বা মাড়তিে মাড়ি চপেে ধরার ইচ্ছা। (৪) রাতে বৃদ্ধি ও শয্যার উত্তাপে বৃদ্ধ।ি

২৮. পালসেটিলাঃ (১) পরর্বিতনশীলতা। (২) নম্রতা ও ক্রন্দনশীলতা। (৩) তৃষ্ণাহীনতা। (৪) গরমে বৃদ্ধি ও গা র্সবদা গরম।

২৯. সোরিনামঃ (১) ধাতুগত বা বংশগত সোরাদোষ ও উপযুক্ত ঔষধরে র্ব্যাথতা। (২) উদ্বগে,আতঙ্ক ও নরৈাশ্য। (৩) প্রবল ক্ষুধা ও অত্যধকি র্দূগন্ধ। (৪) র্দূবলতা ও শীর্তাততা।

৩০. রাসটক্সঃ (১) র্বষায় ও বশ্রিামে বৃদ্ধ।ি (২) অঙ্গ প্রত্যঙ্গে কামড়ানি ও অস্থরিতা। (৩) জহিবার অগ্রভাগে ত্রকিোন লাল র্বন ও জ্বররে শীত অবস্থায় কাশ।ি (৪) অস্থরিতায় ও উত্তাপে উপশম।

৩১. রুটা জিঃ (১) সন্ধি স্থানরে অস্থচ্যিুতি বা সন্ধস্থিান মচকাইয়া যাওয়া। (২) কটি ব্যাথা বা মলদ্বাররে শথিলিতা। (৩) স্ত্রী জননন্দ্রেয়িে চুলকানরি সহতি বাম স্তনে ব্যাথা। (৪) চক্ষু জ্বালা ও দৃষ্টি বর্পিযায়।

৩২. সিনেসিও অরিঃ (১) ঋতুস্রাবের পরিবর্তে রক্তকাশ। (২) রক্তস্রাবজনিত শোথ। (৩) রজঃরোধ, রজঃরোধ জনিত রক্তস্রাব, ঋতুপরবর্তী জরায়ুর শিথিলতা এবং তজ্জন্য অনিদ্রা। (৪) মূত্রপাথরী, ডান কিডনীতে ব্যথা ও যন্ত্রণাদায়ক রক্তমূত্র।

৩৩. সিপিয়াঃ (১) বষিন্নতা,ক্রন্দনশীলতা ও উদাসীনতা। (২) অতরিক্তি রক্তক্ষয় বা র্গভধারন জনতি জরায়ুর শথিলিতা। (৩) উদরে শূন্যবোধ,মলদ্বারে র্পূনবোধ। (৪) পরশ্রিমে উপশম ও গোসলে অনচ্ছিা।

৩৪. স্ট্যাফিসেগ্রিয়া (১) কামভাবরে প্রাবাল্য এবং তার কূফল।(২) অতরিক্তি ক্রোধ ও তার কূফল। (৩) সঙ্গম বা সহবাসজনতি মূত্রকষ্ট বা শ্বাসকষ্ট। (৪) চোখে আঞ্জনি ও দাঁতে পোকা।

৩৫. সালফারঃ (১) অপরস্কিার ও অপরছ্ন্নিতা। (২) সকালে মলত্যাগ ও মধ্যাহ্নে ক্ষুধা। (৩) গোসলে অনচ্ছিা,দুধে অরুচ।ি (৪) ব্রক্ষতালু,হাতরে তালুও পায়রে তলায় উত্তাপ বা জ্বালা।

৩৬. সিফিলিনামঃ (১) বংশগত উপদংশ বা উপযুক্ত ঔষধরে র্ব্যাথতা। (২) রাতে বৃদ্ধ,িঅনদ্রিা ও অক্ষুধা। (৩) র্খবতা ও পক্ষাঘাত। (৪) ক্ষত ও র্দূগন্ধ।

৩৭. থুজা অক্সিঃ (১) আঁচলি, র্অবুদ ও রক্তহীনতা। (২) ঠাণ্ডায় বৃদ্ধ,ি র্বষায় বৃদ্ধি এবং রাত্রি তনিটায় বৃদ্ধ।ি (৩) বদ্ধমূল ধারণা ও স্বপ্নবহুল নদ্রিা। (৪) টকিা ও বসন্ত।

৩৮. টিউবারকুলিনামঃ (১) সবরিাম জ্বর। (২) ক্ষীণদহে, রোগরে পুনরাবৃত্তরি প্রবণতা। (৩) উত্তরাধকিারসূত্রে প্রাপ্ত যক্ষ্মাসম্ভব অবস্থার প্রবণতা ও সহজইে রোগাক্রমন । (৪) রাত্রকিালে কষ্টদাযক ও সদাস্থায়ী চন্তিা।

৩৯. ক্যালকেরিয়া ফ্লোরঃ (১) গ্রন্থরি ববিৃদ্ধ,ি গ্রন্থপ্রিদাহ, অস্থক্ষিত- ক্ষত পাকয়িা পুঁজযুক্ত হয়। (২) রক্তস্রাবী র্অশ, মুখ দয়িে রক্ত ওঠা, চোখে ছানি ও নাকে র্দুগন্ধ। (৩) মস্তষ্কি, স্তন বা জরায়ুর টউিমার। (৪) শীতকাতর, গরমে ও সঞ্চালনে উপশম।

৪০. ক্যালকেরিয়া ফসঃ (১) ক্রোফুলা বা ধাতুগত র্দূবলতা ও উদারাময়। (২) মানসকি পরর্বিতনশীল। (৩) ঋতুকালে মুখমন্ডলে উদ্ভদে। (৪) ঠান্ডায় বৃদ্ধ,ি রোগরে কথা মনে পড়লিইে বৃদ্ধ।ি

৪১. ক্যালকেরিয়া সালফঃ (১) ফোড়া, ক্ষত ইত্যাদি যে কোন প্রক্রয়িার ক্ষত্রেে হলুদ র্বণরে গাঢ় পূঁজ। (২) বকৈালীন জ্বর- শীত প্রথমে পদদ্বয়ে অনুভূত, হাত-পা জ্বালা ও ঘাম। (৩) প্রাতকালীন উদরাময় বা কোষ্ঠব্ধতা। (৪) মানসকি পরর্বিতনশীলতা।

৪২. ফেরাম ফসঃ (১) প্রদাহ ও জ্বররে প্রথমাবস্থা (একোনাইট, বলেডেোনা)। (২) রক্তশুণ্যতা ও র্দূবলতা (হ্যামামলেসি)। (৩) মূত্রথলীর তরুণ প্রদাহ, রক্ত প্রস্রাব, ব্যথাহীন উদরাময় বা আমাশয় তৎসহ বম।ি (৪) বাম ওভারীতে স্নায়ুবকি বদেনা ও বাধক বদেনা।

৪৩. ক্যালি ফসঃ (১) ক্রোফুলা বা ধাতুগত র্দূবলতা ও উদারাময়। (২) মানসকি পরর্বিতনশীল। (৩) ঋতুকালে মুখমন্ডলে উদ্ভদে। (৪) ঠান্ডায় বৃদ্ধ,ি রোগরে কথা মনে পড়লিইে বৃদ্ধ।ি

৪৪. ক্যালি মিউরঃ (১) প্রদাহরে দ্বতিীয় অবস্থা। (২) র্চবি ও মসলাযুক্ত আহারে অর্জীণ। (৩) ঋতুস্রাব অনয়িমতি। (৪) কাধরে সন্ধতিে বদেনা, র্চমপীড়া আরগ্য হয়ে মৃগী ও টকিার কুফল।

৪৫. ক্যালি সালফঃ (১) প্রদাহরে তৃতীয় অবস্থা। (২) সকল স্রাব হলদ,ে ঋতু বলিম্বতি ও কম। (৩) হাম, বসন্ত প্রভৃতি পীড়ায় র্ঘমহীন র্চম, রুক্ষ ও খসখস।ে (৪) হাত-পা ও চক্ষুর জ্বালা, বকিাল ৪/৫টা থকেে মধ্যরাত র্পযন্থ বৃদ্ধ।ি

৪৬. ম্যাগ ফসঃ (১) স্নায়ুশূল বা শূলব্যথা। (২) ব্যথার সহতি আক্ষপে। (৩) ব্যথা চাপে উপশম। (৪) ঠাণ্ডায় যন্ত্রণা বৃদ্ধ,ি উত্তাপ প্রয়োগে উপশম।

৪৭. ন্যাট্রাম মিউরঃ (১) বর্মিষ,বষিন্ন ভাব,সান্তনায় বৃদ্ধ।ি (২) রৌদ্রে বৃদ্ধি এবং মীতল স্থানে উপশম। (৩) তক্তি ও লবণপ্রয়িতা। (৪) প্রকাশ্য স্থানে প্রস্রাব করতে লজ্জাবোধ।

৪৮. ন্যাট্রাম ফসঃ (১) বচিরণ,ে বমনান্তে ও ঝড়-বৃষ্টরি দনিে বৃদ্ধ।ি (২) অম্লপীড়া ও আহাররে পর পটেবদেনা। (৩) শশিুদরে উদরাময় ও দুগ্ধ বমন। (৪) ম্রমিরি লক্ষণ ও যুবকদরে স্বপ্নদোষ।

৪৯. ন্যাট্রাম সালফঃ (১) জল,জলাভূমি ও জলীয় খাদ্যে বৃদ্ধ।ি (২) বরিক্ত, বষিন্নভাব ও আত্মহত্যার ইচ্ছা। (৩) প্রাত:কালীন মলত্যাগ এবং মলত্যাগকালে প্রচুর বায়ু ন:িসরন। (৪) নখ পচয়িা যাওয়া।

৫০. সাইলিসিয়াঃ (১) দৃঢ়তার অভাব ও শীর্তাততা। (২) মাথায় এবং পায়রে তলায় র্দূগন্ধ ঘাম। (৩) উত্তাপে উপশম ও অমাবস্যায়ও র্পূণমিায় বৃদ্ধ।ি (৪) টকিাজনতি কূফল।

4 Comments