ক্যালকেরিয়া গ্রুপ বিষয়ে কিছু তথ্য

ক্যালকেরিয়া হোমিওপ্যাথিক এই ঔষধটির নাম উচ্চারন করলে আমাদের যে ঔষধটির নাম ভেসে আসে তা হল ক্যালকেরিয়া কার্ব। যার উৎস সামুদ্রিক শামুক থেকে। সহজ কথায় বলতে গেলে আমাদের দেশে পানের সাথে যে চুনটি ব্যবহৃত হয় তাই ক্যালকেরিয়া।
হোমিওপ্যাথিক মেটেরিয়াতে ক্যালকেরিয়া কার্ব ছাড়াও ক্যালকেরিয়া সংশ্লিষ্ট অনেক ঔষধ আছে। যেমন-ক্যালকেরিয়া ফস, ক্যালকেরিয়া ফ্লোর, ক্যালকেরিয়া আর্স, ক্যালকেরিয়া এসেট, ক্যালকেরিয়া পিক্রেটা, ক্যালকেরিয়া ব্রোম, ক্যালকেরিয়া কষ্টিকাম, ক্যালকেরিয়া ক্যালসিনেটা, ক্যালকেরিয়া আয়োড, ক্যালকেরিয়া হাইপোফস, ক্যালকেরিয়া সিলিকা, ক্যালকেরিয়া সালফ ইত্যাদি।।
আজকে আমার লেখার বিষয় হল, ক্যালকেরিয়া কার্ব ঔষধটির উৎস সামুদ্রিক শামুক হলে অন্যান্য ক্যালকেরিয়া ঔষধ গুলোর উৎস কি?
হা, এই মজার তথ্যটি অনেকে জানেন না। এই মজার তথ্যটি হল-এগুলো সব ক্যালকেরিয়ার সাথে অন্য একটি উপাদান বা উৎস মিশ্রিত ঔষধ।
উদাহরণ স্বরূপ বলা চলে,
আর্সেনাইট –অফ-লাইম, অর্থ্যাৎ ক্যালকেরিয়া+আসেনিক সংমিশ্রনে হয়েছে ক্যালকেরিয়া আর্স।
ফ্লোরাইড –অফ-লাইম, অর্থ্যাৎ ক্যালকেরিয়া+ ফ্লোরাইট সংমিশ্রনে হয়েছে ক্যালকেরিয়া ফ্লোর।
আর্সেনাইট –অফ-লাইম,অর্থ্যাৎ ক্যালকেরিয়া+আসেনিক সংমিশ্রনে হয়েছে ক্যালকেরিয়া আর্স।
আয়োডাইড –অফ-লাইম, অর্থ্যাৎ ক্যালকেরিয়া+আয়োডাইড সংমিশ্রনে হয়েছে ক্যালকেরিয়া আয়োড।
এভাবেই ক্যালকেরিয়ার গ্রুপের অন্যান্য ঔষধ গুলোর উৎস।

🌍Calcarea carb 🌍Calcarea iod 🌍Calcarea fluor 🌍Calcarea phos 🌍Calcarea sulph 🌍Calcarea Acetica 🌍Calcarea Ars 🌍Calcarea brom 🌍Calcarea caust
🌍Calcarea chlor 🌍Calcarea critclrica 🌍Calcarea formicum 🌍Calcarea hypophos 🌍Calcarea hydroid 🌍Calcarea lactica 🌍Calcarea mur 🌍Calcarea metallucum 🌍Calcarea Nitricum 🌍Calcarea oxydata 🌍Calcarea picrica
🌍Calcarea oxalia 🌍Calcarea stib sulph 🌍Calcarea sil

সকল ক্যাল্কেরিয়া শীত কাতর। ক্যাল্কেরিয়া সালফ ও ক্যাল্কেরিয়া আয়োড ব্যাতীত।

🌹ধাতু প্রকৃতিঃ

চর্বিযুক্ত, মেদ বহুল, মোটা ব্যতিক্রম ক্যাল্কেরিয়া ফস।

🌹 অন্যান্ন বৈশিষ্ঠঃ

  • মুখমন্ডল লালচে ভাব শিরা, ধমনী, চোখ, কান, বুকে রক্ত জমা উত্তপ্ত লালচে আভা, মন্হর, অসারতা
  • দাত উঠতে শিশুদের দেরী হয়!
  • হতাশ, বামন, নির্বোধ, অবসন্ন, মোটা রুগী
  • অর্থলোভী এবং শিক্ষা গ্রহনে দেরি হয় হাড় এবং গ্রন্হি আক্রান্ত
  • গ্রন্হির বিবৃদ্ধি ও কাঠিন্য
  • হাড় সহজেই ভেংগে যায়, জোড়া লাগতে দেরি হয়
  • শারিরীক ও মানষিকভাবে অতি সহজেই ক্লান্ত হয়ে পড়ে
  • স্রাব প্রচুর
  • সহজেই রক্তপাত হওয়ার প্রবনতা
  • ঋতুস্রাব অনেক আগে, প্রচুর, দীর্ঘদীন ধরে চলে
  • প্রতিরক্ষা আবরনী তৈরি ও অপসারন করতে পারে।

🌹 ইচ্ছাঃ বদহজম হয় এমন খাদ্য যেমনঃ চুনা পাথর, কাঠ, কয়লা ইত্যাদি
🌹 অনিচ্ছাঃ তামাক, কফি, মাংস
🌹 চর্মঃ অস্বাস্হ্যকর, তৈলাক্ত মোমের মত চকচকে
🌹 ব্যথাঃ তীব্রতর ব্যাথা, জ্বালাকর, খোচা মারার মত
🌹 হ্রাসঃ উত্তাপে, বিশ্রামে, পেটের উপর চাপ দিয়ে শুলে
🌹 বৃদ্ধিঃ ঠান্ডায়, ভেজা আবহাওয়ায়, পরিশ্রমে