আমাদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কতটুকু শক্তিশালী?

করোনা(কোভিড-১৯)নিয়ে বেশি আতঙ্কিত হলে, সব সময় ভয়ে ভয়ে থাকলে সংক্রমণের ঝুঁকি বাড়বে। কারন এতে রোগ প্রতিরোধ কমার সম্ভাবনা থাকে। সর্দি, কাশি, জ্বর হলেই কোভিড-১৯ পজিটিভ নয়, আর এটা পজিটিভ হলেই মৃত্যু নয়। সুতরাং ভয় না পেয়ে সতর্ক থাকি। এখন ভাইরাসের দিকে না তাকিয়ে দৃষ্টি ফেরান নিজের দিকে।
আমাদের পরিবেশ ভাইরাস, ব্যাকটেরিয়া ইত্যাদি জীবাণুতে পরিপূর্ণ। আছে multi-drug resistant tuberculosis ও। কিন্তু আমরা বেশীরভাগ ক্ষেত্রে সংক্রমিত হচ্ছি না। কেউ কেউ আবার সহজেই সংক্রমিত হচ্ছে।
এর একটি বড় কারন হচ্ছে আমাদের immunity বা রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা। যাঁদের শরীরের immune system যত শক্তিশালী তাঁদের ক্ষেত্রে জীবাণু সংক্রমণের সম্ভাবনা তত কম থাকে। আমাদের রক্তে white blood cells (WBC) স্বাভাবিক রাখার মাধ্যমে এই immune system কে শক্তিশালী করা যায়। শরীরে কোন জীবাণু প্রবেশ করলে এই WBC আমাদেরকে সুরক্ষা দেয়।
অনেক ভাল ভাল পরামর্শ আছে এই করোনা প্রতিরোধের জন্য। সাবান দিয়ে হাত পরিস্কার রাখা, নাকে মুখে হাত না লাগানো, ঘরে থাকা, মাস্ক পড়া, সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা ইত্যাদি এমন আরো অনেক কিছু। নিজেকে সুরক্ষা দিতে সবকিছু করছেন। শুধু দরজায় ভারী তালা লাগালেই তো হবে না, দরজাটাও মজবুত করতে হবে। অর্থাৎ সব কাজের পাশাপাশি আমাদের শরীরের immunity বৃদ্ধির ব্যবস্থা করতে হবে। কিন্তু কিভাবে আমরা তা করতে পারি?
শুরুতেই আতঙ্ক, ভয় দূর করেন। বাসায় থাকবেন মানেই অলস সময় কাটাবেন? দয়া করে তা করবেন না। শরীরকে চাঙ্গা রাখুন। ছুটি পেয়ে রাত জেগে, অবহেলা করে শরীরকে দুর্বল করে ফেলবেন না। এতে সংক্রমণের ঝুঁকি বাড়বে। বাসায় থাকলে কিছু ব্যায়াম করুন। একটু হাঁটাহাঁটি করুন। চেষ্টা করুন ফুরফুরে মেজাজে থাকতে। ঘুম, খাওয়া, বিশ্রাম ঠিকমত করুন। বাসায় থাকলে পরিবারের সাথে quality সময় কাটান। তাদের সাথে গল্প করুন, আনন্দময় করুন সময়গুলো।
ভিটামিন সি জাতীয় খাবার খান। পেয়ারা, কমলা, আমলকি, টমেটো, কলা, দুধ, সবুজ শাক সবজি, প্রোটিন জাতীয় খাবার ইত্যাদি সহ প্রচুর পরিমাণে পানি পান করুন। প্রোটিনের জন্য মসুর ও মুগ ডাল মিশিয়ে খিচুরি খেতে পারেন। শরীরে রোদ লাগান, এতে ভিটামিন ডি এর অভাব পূরণ হবে। এ বিষয়ে বিস্তারিত জেনে নিজের জন্য প্রয়োজনীয় খাবার আপনার খাদ্য তালিকায় যুক্ত করতে পারেন। ধূমপানের বদ অভ্যাস দূর করেও শরীরকে সুরক্ষা দিতে পারেন। এভাবে শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধির চেষ্টা করা যেতে পারে।।
অন্য কোন কারনে শারীরিক দুর্বলতা বা অসুস্থ হয়ে পড়ার ঘটনা যেন না ঘটে সেদিকে খেয়াল রাখুন।
সবচেয়ে বড় কাজটি হবে যদি নিজেকে সুরক্ষা দিতে পারেন। সেজন্য এই কাজগুলোকে বিবেচনায় নিতে পারেন। করোনা প্রতিরোধের জন্য এইসব কাজের অভ্যাস আপনাকে শুধু করোনা নয়, যে কোন ধরনের সংক্রমণের ঝুঁকি কমাতে সহায়তা করবে।
আতঙ্কিত হওয়া কোন সমাধান নয়। শান্ত হয়ে কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণ করাই সমাধান।
তবু বলছি, যেকোনো অসুস্থতায় আপনার নিকটস্থ বিশ্বস্ত হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসকের পরামর্শ ও ওষুধ গ্রহণ করুন। হোমিওপ্যাথিক ওষুধ আপনার রোগ আরোগ্য করার পাশাপাশি আপনার রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাও বাড়ায় বহুগুণ।
সবার সুস্বাস্থ্য কামনা করি।
#ডা. এইচ এম আলীমুল হক, ডিএইচএমএস (বিএইচবি), কিউএইচসিবি (বিইউবি)।
চেম্বার: আলহক্ব হোমিও ফার্মেসী, মৌচাক, কান্দাপাড়া, মিজমিজি, সিদ্ধিরগঞ্জ, নারায়ণগঞ্জ, ঢাকা, বাংলাদেশ।
#চিকিৎসা বিষয়ক পরামর্শের জন্য ১০০টাকা বিকাশ করুন এই নাম্বারে ০১৯২০-৮৬৬৬১০ তারপর সকাল ৯.৩০ থেকে রাত ৯.৩০ পর্যন্ত (শুক্রবার ও নামাজের সময় ছাড়া) কল করুন।