Category: হোমিওপ্যাথিক বোর্ড ও কলেজ সমূহ

বাংলাদেশে হোমিওপ্যাথি বোর্ড প্রতিষ্ঠার ইতিহাস

স্বাধীন বাংলাদেশে হোমিওপ্যাথি বোর্ড প্রতিষ্ঠা ও ডি এইচ এম এস কোর্স প্রবর্তন এবং হোমিওপ্যাথির বিকাশ ১৯৭১ সালের ১৬ই ডিসেম্বর পাকিস্তানী সৈন্যদের বিনা শর্তে আত্মসমপর্ণের মাধ্যমে পূর্ব পাকিস্তানে পশ্চিম পাকিস্তানীদের শাসন ও শোষণ চিরদিনের জন্য বন্ধ হয়ে যায় এবং স্বাধীন সার্বভৌম গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ রাষ্ট্রের পত্তন হয়। স্বাধীন বাংলাদেশে ১৯৭২ সালে বাংলাদেশের জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর

ভারতবর্ষে হোমিওপ্যাথির ইতিহাস

ভারতবর্ষে হোমিওপ্যাথির সূচনাপর্ব জার্মানীর স্যাক্সিনি প্রদেশের মাইসেন শহরের চিকিৎসক স্যামুয়েল হ্যানিমান (১৭৫৫-১৮৪৩ খ্র্রীঃ) কালেন সাহেব লিখিত অ্যালোপ্যাথিক মেটেরিয়া মেডিকার দ্বিতীয় খন্ডের ‘সিঙ্কোনা’ (Cinchona) অধ্যায় অনুবাদ করার সময় আরোগ্যের এক নতুন নিয়মের সন্ধান পেয়েছিলেন। হ্যানিম্যানের এই নতুন চিকিৎসা পদ্ধতি পরবর্তীকালে ‘হোমিওপ্যাথি’ নামে প্রসিদ্ধি লাভ করে। জার্মানীর পর ফ্রান্স, যুক্তরাজ্য ও ইউরোপের কয়েকটি দেশে হোমিওপ্যাথি প্রসারের সাথে

প্রধানমন্ত্রীকে করোনা ভাইরাসে হোমিওপ্যাথি চিকিৎসা ও মন্ত্রণালয় “প্রজ্ঞাপন” জন্য “খোলা চিঠি”

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী সালাম ও শুভেচ্ছা নিবেন। বাংলাদেশে করোনা ভাইরাস টেস্ট সরকারিভাবে করা হয়। রোগী টেস্ট করার পর যদি পজিটিভ ধরা পড়ে তখন সরকারের প্রশাসন/সরকারি স্থানীয় প্রশাসন সরকারি এম্বুলেন্স, ডাক্তার, নার্স, প্রশাসনের লোকজন, পুলিশ সদস্য প্রেরণ করে রোগীকে সরকারি করোনা ভাইরাস বিষয় নিদিষ্ট হাসপাতালে নিয়ে যায় ও বাড়ীর লোকজনসহ লকডাউন করে রাখে। তাহলে কিভাবে বাংলাদেশে করোনা

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় “প্রজ্ঞাপন” ব্যতিত করোনা রোগী টেস্টে পজিটিভ হলেও হোমিওপ্যাথি চিকিৎসার সুযোগ নেই?

বাংলাদেশে করোনা ভাইরাস টেস্ট সরকারিভাবে করা হয়। রোগী টেস্ট করার পর যদি পজিটিভ ধরা পড়ে তখন সরকারের প্রশাসন/সরকারি স্থানীয় প্রশাসন সরকারি এম্বুলেন্স, ডাক্তার, নার্স, প্রশাসনের লোকজন, পুলিশ সদস্য প্রেরণ করে রোগীকে সরকারি করোনা ভাইরাস বিষয় নিদিষ্ট হাসপাতালে নিয়ে যায় ও বাড়ীর লোকজনসহ লকডাউন করে রাখে। তাহলে কিভাবে বাংলাদেশে করোনা ভাইরাস চিকিৎসা হোমিওপ্যাথিতে সম্ভব? টেস্ট রিপোর্ট

হোমিওপ্যাথিক মেডিকেল কলেজ (ডিপ্লোমা) সমূহের নাম ও ঠিকানা

বাংলাদেশ হোমিওপ্যাথিক বোর্ড ১৯৭৩ সালে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রকের অধীন একটি স্বায়ত্তশাসিত সংস্থা হিসাবে ১৯৮৩ সালের অধ্যাদেশ এবং আইন ১৯৮৫ অনুসারে প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল। বাংলাদেশ সরকার দেশের হোমিওপ্যাথির একটি মডেল একাডেমিক ইনস্টিটিউট হবে। বাংলাদেশ হোমিওপ্যাথি বোর্ড (বিএইচবি) হোমিওপ্যাথিক শিক্ষা, অসামান্য রোগীদের যত্ন এবং গবেষণা কার্যক্রমের ক্ষেত্রে দক্ষতার জন্য সমৃদ্ধ হয়েছে। বিএইচবি বিএইচএমএস (হোমিওপ্যাথিক মেডিসিন ও

ডিএইচএমএস কোর্স কারিকুলাম

ডিপ্লোমা (ডিএইচএমএস) এর জন্য প্রশাসনিক তথ্য কোনও স্বীকৃত প্রতিষ্ঠানে ডিপ্লোমা কোর্সে (ডিএইচএমএস) ভর্তির জন্য আবেদনকারীগণ মাধ্যমিক বিদ্যালয় সার্টিফিকেশন পরীক্ষা বা একটি স্বীকৃত বোর্ডের সমমানের পরীক্ষায় অগ্রণীভাবে দ্বিতীয় বা উচ্চতর বিভাগে বা জিপিএ-২.৫ উত্তীর্ণ হতে হবে এবং লিখিত এবং ভাইভা ভোস দ্বারা অনুমোদিত হলে একটি নির্বাচন কমিটি, প্রথম বর্ষের ক্লাসে ভর্তি হতে হবে। যে কোনও শিক্ষার্থী